বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

দিল্লির দূষণে এমনিতেই আয়ু কমছে, ফাঁসি দিয়ে লাভ কী: নির্ভয়ার ধর্ষক

আপডেট: December 12, 2019, 1:15 am

সোনার দেশ ডেস্ক


দণ্ডপ্রাপ্ত চার আসামি-সংগৃহীত

২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর দিল্লির চলন্ত বাসে প্যারামেডিক্যাল ছাত্রী নির্ভয়ার ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের পর প্রতিবাদে ফুঁসে ওঠে ভারত। চলন্ত বাসে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর রাস্তায় ছুড়ে ফেলা হয়েছিল তাকে। ওই ঘটনার পর জনরোষের মুখে এ সংক্রান্ত আইন পরিবর্তনে বাধ্য হয় ভারত। কিন্তু থামেনি বীভৎসতা। শুধু ধর্ষণই নয়; ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যা, মেরে ফেলার পর লাশ পুড়িয়ে দেওয়ার মতো ভয়াবহ ঘটনাও ঘটেছে দেশটিতে। ঘটনার সাত বছর পেরুলেও এখনও কার্যকর হয়নি ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের সাজা। এরমধ্যেই এক ধর্ষক দাবি তুলেছে, দিল্লির দূষণে এমনিতেই আয়ু কমছে, ফাঁসি দিয়ে লাভ কী?
মৃত্যুদণ্ড এড়াতে তাই ক্ষমাভিক্ষা নয়, নতুন করে রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়েছে অক্ষয় ঠাকুর নামের ওই ধর্ষক। দূষণের জন্য মৃত্যুদণ্ডের রায় পর্যালোচনার এমন আবেদনে রীতিমতো বিস্মিত আইনজীবীরাও।
নির্ভয়া ধর্ষণে যুক্ত ছয় জনকেই দোষী সাব্যস্ত করেছিলেন নিম্ন আদালত। তাদের মধ্যে একজন ঘটনার সময় নাবালক থাকায় সর্বোচ্চ সাজা তিন বছরের জেলের মেয়াদ শেষে ছাড়া পেয়ে গেছে। বাকি পাঁচ জনকে ফাঁসির নির্দেশ দিয়েছিল নিম্ন আদালত। এদের মধ্যে রাম সিংহ নামে এক অভিযুক্ত তিহাড় জেলের মধ্যেই আত্মহত্যা করে। নিম্ন আদালত থেকে উচ্চ আদালত, শীর্ষ আদালত হয়ে বাকিদের সর্বশেষ আইনি প্রক্রিয়াও শেষের পথে।
তথ্যসূত্র: বাংলা ট্রিবিউন