দুই আসামী গ্রেফতার, লুন্ঠিত মোটরসাইকেল উদ্ধার

আপডেট: আগস্ট ৯, ২০২০, ২:৪৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :


কলেজ ছাত্র সানি হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন

চারঘাটে কলেজ ছাত্র সানি কলেজ ছাত্র সানি হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন রহস্য উদঘাটিত হয়েছে। পুলিশ ওই কলেজ ছাত্র সানি হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন সাথে জড়িত দুই আসামীকে গ্রেফতার করেছে এবং সানির মোটরসাইকেল উদ্ধার করেছে।
রোববার (৯ আগস্ট) রাজশাহীর পুলিশ সুপার তার কার্যালয়ে সম্মেলন কক্ষে দুপুর ১২ টায় প্রেস বিফ্রিঙে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানায়।
উল্লেখ্য, শনিবার (৮ আগস্ট) অনুমান সকাল ৭:২০ টার দিকে চারঘাট উপজেলার মাড়িয়া মসজিদপাড়া গ্রামের জনৈক মো. মোশারফ হোসেনের কলাবাগানের উত্তরপশ্চিম কর্নারে পাকা রাস্তার ঢালে খেঁজুর গাছের নিচে গলাকাটা রক্তাক্ত অবস্থায় সাইফ ইসলাম সানি(২৩) লাশ উদ্ধার করা হয়। সানি পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর থান্দারপাড়ার মো. সিরাজুল ইসলামের ছেলে। মৃত সানি নাটোর এনএস কলেজে হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র ছিলেন। মৃত সানির পিতা সিরাজুল ইসলাম বাদী হয়ে চারঘাট মডেল থানায় হত্যা মামলা রুজু করেন।
বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে নিয়ে রাজশাহী পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ বিপিএম, পিপিএম এর দিকনির্দেশনায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে চারঘাট মডেল থানা পুলিশ এজাহার নামীয় আসামী দুই আসামীকে রোববার গ্রেফতার করে। রোববার রাত ১২:১০ টা হতে ১:৪০ টা সময়ের মধ্যে চারঘাট থানার মৌগাছি এলাকা হতে গ্রেফতার করা হয়। ধৃত যুবকদ্বয় হলেন. পুঠিয়ার বানেশ্বর থান্দারপাড়ার ইদল আলীর পুত্র মো. সাকিব ও মৃত খায়েরের পুত্র মো. সাগর।
মামলার বাদি লিখিত অভিযোগ করেন যে, তার ছেলে মৃত সানি (২৩) কে আসামী সাকিব প্রয়োজনীয় কাজের কথা বলে তার দোকান হতে ছেলের ব্যবহৃত লাল রঙের হিরো ১০০ সিসি মোটর সাইকেলসহ ডেকে নিয়ে যায়। এরপর থেকেই মৃত সাইফ ইসলাম সানি নিখোঁজ ছিল। প্রেস ব্রিফিঙে পুলিশ জানায়, তদন্তকালে প্রথমে এজাহার নামীয় আসামী মো.সাকিবকে রোববার ১০ মিনিটে চারঘাট মডেল থানাধীন মৌগাছি এলাকা হতে গ্রেফতার করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে সে মামলার ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে এবং তার সহযোগী আসামী মো. সাগর এর নাম-ঠিকানা প্রকাশ করে। সাকিবের দেয়া তথ্য যাচাই করে মোঃ সাগরকে রোববার রাত ১:৪০ টায় মৌগাছি বাজার এলাকা হতে গ্রেফতার করা হয়। আসামীদ্বয়কে জিজ্ঞাসাবাদে তারা উভয়ই মামলার ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়ের স্বীকারোক্তি ও দেখানো মতে পুঠিয়া থানাধীন বানেশ্বর বাজারের জনৈক মৃত হামেদের ছেলে মো. আক্কাসের মোটর সাইকেল গ্যারেজ হতে মৃত সানির মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয় এবং সাকিব এর বসত বাড়ির শয়ন ঘরের চৌকির বিছানার নিচ হতে মোটর সাইকেলের চাবি উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয় এলাকায় দুস্কৃতিকারী হিসেবে পরিচিত। তারা উভয়ই মৃত সাইফ ইসলাম সানি এর মোটর সাইকেল আত্মসাৎ করার উদ্দেশ্যে পূর্ব পরিকল্পনা ও পূর্ব প্রস্তুতি মোতাবেক নেশাজাতীয় ফেন্সিডিলের নাথে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে সানিকে কৌশলে খাইয়ে অচেতন করে ঘটনাস্থলে ধারালো ছুরি দ্বারা গলা কেটে ও হাত পায়ের রগ কেটে হত্যা করে মোটর সাইকেল নিয়ে যায় বলে স্বীকার করে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ