দুই বিদেশি জেতালেন জামালকে

আপডেট: নভেম্বর ২২, ২০১৬, ১০:৩১ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক
শিরোপার লড়াই থেকে বলতে গেলে ছিটকেই পড়েছে শেখ জামাল ধানমিন্ড ক্লাব। বতর্মান চ্যাম্পিয়নদের লিগ লড়াইয়ে ফিরে আসতে দুটি সমীকরণ মিলতে হবে। তাদের জিততে হবে, আর হারতে হবে আবাহনীকেও। নিজেদের কাজটা অবশ্য করে যাচ্ছে ধানমন্ডির ক্লাবটি। চট্টগ্রাম আবাহনীর পর সকার ক্লাবকে হারিয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে শিরোপার লড়াইয়ে ফিরে আসার কিছুটা সম্ভাবনা তৈরি করেছে তারা। মঙ্গলবার চট্টগ্রাম এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে শেখ জামাল ২-১ গোলে হারিয়েছে সকার ক্লাবকে।
পিছিয়ে পড়া শেখ জামালকে গুরুত্বপূর্ণ এ জয় এনে দিয়েছেন তাদের দুই বিদেশি নাইজেরিয়ার এমেকা ডার্লিংটন ও গাম্বিয়ান ল্যান্ডিং। ২৫ মিনিটে হিমুর শট জামালের ডিফেন্ডার ইয়াসিনের পায়ে লেগে জালে জড়ালে এগিয়ে যায় ফেনীর দলটি। তবে শেখ জামাল সমতা এনেই বিরতি যায়। ৪৫ মিনিটে ল্যান্ডিংয়ের কাটব্যাক থেকে গোল করেন নাইজেরিয়ান এমেকা ডার্লিংটন।
ল্যান্ডিং জয়সূচক গোল করেছেন ৭৬ মিনিটে। শিহাবের থ্রো ধরে দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে গোল করেন এ গাম্বিয়ান। তবে ল্যান্ডিং আরো আগেই ব্যবধান বাড়িয়ে দিতে পারতেন। ৬৮ মিনিটে ছোট বক্সের মাথা থেকে তার নেয়া শট চলে যায় ক্রসবারের উপর দিয়ে।
জামালের দ্বিতীয় গোলের পর খেলা মিনিট পাঁচেক বন্ধ ছিল। সকার ক্লাবের খেলোয়াড়দের দাবি ছিল বল ল্যান্ডিংয়ের কাছে পৌঁছানোর আগে ফাউলের শিকার হয়েছিলেন তাদের এক খেলোয়াড়। রেফারি অবশ্য তাদের দাবিতে কর্ণপাত করেননি।
পিছিয়ে পড়া সকার ক্লাব ম্যাচে ফেরার সহজ সুযোগ পেয়েছিল ইনজুরি সময়ে। কিন্তু হেলাল বক্সে এক জামালের এক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে যে শট নেন তা চলে যায় ক্রসবার উঁচিয়ে।
এ জয়ে শীর্ষে থাকা আবাহনীর সঙ্গে পার্থক্য কমিয়ে এনেছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। ১৬ ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ২৮। অবস্থান তিনে। এক ম্যাচ কম খেলা চট্টগ্রাম আবাহনী দুইয়ে আছে তাদের সমান পয়েন্ট নিয়ে। আবাহনী ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে অনেকটা নিরাপদ দূরত্বে। এ হারে রেলিগেশনের শঙ্কা আরও বাড়লো সকার ক্লাবের। ১৬ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে সবার নিচে ফেনীর দলটি।