দুদকের মামলায় গ্রেফতারকৃত শিক্ষা কর্মকর্তা কারাগারে

আপডেট: আগস্ট ২৩, ২০১৭, ১২:৫২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহীতে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) হাতে গ্রেফতার  শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কাশেমকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে থানা থেকে তাকে রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে-১ এ হাজির করে জামিনের আবেদন করা হয়। তবে আদালত তা না মঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।
শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কাশেমের পক্ষে জামিনের আবেদন জানান তার আইনজীবী আসাদুজ্জামান মিঠু। পরে আবেদনের ওপর শুনানি হয়। শুনানি শেষে রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মাহাবুবুর রহমান তার জামিন আবেদন নাকচ করে দেন।
রাজশাহী মহানগর আদালতের পুলিশ পরিদর্শক আবুল হাশেম এই তথ্য নিশ্চিত করেন। জামিন আবেদন নাকচের পর আদালতের নির্দেশে ওই শিক্ষা কর্মকর্তাকে বিকেলে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।
প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীর বৃত্তি নিয়ে জালিয়াতির অভিযোগে গত সোমবার বিকেলে রাজশাহী পুলিশ লাইনের সামনে থেকে শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কাশেমকে আটক করে দুদক। পরে তাকে নগরীর রাজপাড়া থানায় সোপর্দ করেন দুুদক কর্মকর্তারা।
এর আগে সকালে দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-সহকারি পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ বাদি হয়ে নগরীর রাজপাড়া থানায় আবুল কাশেমের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন। আবুল কাশেমের বিরুদ্ধে অভিযোগ, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার থাকাকালে ২০১৫ সালের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় নিজের মেয়েসহ ৪০ জন শিক্ষার্থীর নম্বর বাড়িয়ে দিয়ে তাদের বৃত্তি পাইয়ে দিয়েছিলেন।
গণমাধ্যমে এ খবর প্রকাশের সূত্র ধরে বিষয়টি তদন্ত শুরু করে দুদক। তদন্তে দুদকের কাছে অভিযোগটির সত্যতার প্রমাণ মেলে। এ জন্য আবুল কাশেমের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়। পরে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
এর আগে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরও এ অভিযোগের তদন্ত করে। সেখানেও এর সত্যতা পাওয়া যায়। এ নিয়ে আবুল কাশেমসহ তিন কর্মকর্তা-কর্মচারির বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হয়।
পরে ‘সুশিক্ষা আন্দোলন মঞ্চ’ নামের একটি সংগঠনের ব্যানারে অভিভাবকরা জড়িতদের শাস্তির দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন। এরপর তৎকালীন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কাশেমকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। বাতিল করা হয় ওই ৪০ শিক্ষার্থীর বৃত্তিও।
তবে গত ৮ আগস্ট আবুল কাশেমের বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করা হয়। এরপর তিনি চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে সংযুক্তিতে ছিলেন। আবুল কাশেমের বাড়ি রাজশাহী মহানগরীর ভদ্রা এলাকায়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ