দুর্গাপুরের ইউপি চেয়ারম্যান মোজাহার আলীর বিরুদ্ধে দুর্নীতি-অনিয়মের অভিযোগ

আপডেট: আগস্ট ২০, ২০১৭, ১২:৩৮ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার ৫ নম্বর ঝালুকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোজাহার আলী মন্ডলের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতি অভিযোগ এনে ইউনিয়ন পরিষদের ১২ সদস্যের মধ্যে ১১ জনই অনাস্থা প্রকাশ করেছেন। সেই সঙ্গে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আনিত অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ উত্থাপন করে তদন্ত ও শাস্তি দাবি জানিয়েছেন। গতকাল শনিবার দুপুরে রাজশাহী মেট্রোপলিটন প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ইউপি সদস্যরা অভিযোগ ও দাবি উত্থাপন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, ইউপি সদস্য আব্দুল লতিফ মির্জা।
লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করেন, ২০১৬ সালের ২৮ মে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের পর চেয়ারম্যান মোজাহার আলীসহ ১২ ইউপি সদস্য ১৩ জুলাই শপথগ্রহণ করে নিজ নিজ দায়িত্বভার গ্রহণ করি। দায়িত্বভার গ্রহণের কয়েকদিন পর থেকেই চেয়ারম্যান মোজাহার আলী আমাদের সাথে অসাদাচরণ করতে থাকে। কথায় কথায় ইউপি সদস্যদের অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করতেও দ্বিদ্ধাবোধ করেন না চেয়ারম্যান মোজাহার আলী। পরিষদের আর্থিক ক্ষতি সাধনের পাশাপাশি ক্ষমতার অপব্যবহার করে একের পর এক অনিয়ম করে চলেছেন তিনি। এসব অভিযোগের পাশাপাশি অনাস্থা প্রস্তাবে সংবাদ সম্মেলনে মোট ৭টি অভিযোগ আনা হয়েছে চেয়ারম্যান মোজাহার আলীর বিরুদ্ধে।
অভিযোগগুলো হলো, চলতি বছরের জানুয়ারী থেকে জুন মাস পর্যন্ত আমাদের ১১ জন ইউপি সদস্যর ভাতার সরকারি অংশের ৬২ হাজার ৭০০ টাকা আত্মসাত করেন চেয়ারম্যান মোজাহার। বিভিন্ন গ্রামের বাসা বাড়ির ট্যাক্সের ১ লাখ ৬২ হাজার টাকা রাজস্ব তহবিলে জমা না দিয়ে ওই টাকাও আতœসাত করেন। ট্রেড লাইসেন্স বাবদ ১৮ হাজার টাকা ও নাগরিক সনদ বাবদ ১৪ হাজার টাকা আদায় করা হলেও সে টাকাও আত্মসাত করেন। টিআর, কাবিটা (নন ওয়েজ), এডিপি, এলজি এসপি-২ প্রকল্পের সভাপতি ইউপি সদস্যদের মনোনীত করা হলেও ক্ষমতার অপব্যবহার করে পুরো প্রকল্পের টাকা জোর পূর্বক ইউপি সদস্যদের কাছ থেকে কেড়ে নিয়ে আত্মসাত করেছেন চেয়ারম্যান মোজাহার। বিধি বহির্ভুতভাবে কাবিটা প্রকল্পের আওতায় আন্দুয়া গ্রামের রাস্তা সংস্কারের একটি প্রকল্পের সভাপতি মনোনীত হয়ে ওই কাজের ১ লাখ ৮০ হাজার টাকাও আত্মসাত করেন তিনি।
চেয়ারম্যান মোজাহার আলীর এ ধরনের কার্যকলাপের প্রতিবাদ করতে গেলেই ইউপি সদস্যদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ সহ প্রাণ নাশের হুমকী-ধামকী দেয়া হয়। এছাড়া তিনি পরিষদে বসেও পরিষদের আর্থিক ক্ষতিসাধন ও রাষ্ট্র বিরোধী কর্মকান্ডের সাথে সম্পৃক্ত আছেন।
সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে চেয়ারম্যান মোজাহার আলী মন্ডলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন এবং তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সরকারের সংশ্লিষ্ট দফতরগুলোর সহায়তা কামনা করে ইউপি সদস্যরা।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, ঝালুকা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য রিতা বেগম, রাজেনা বিবি, রুপালী বেগম, আওয়াল মোল্লা, আতাউর রহমান, নুরু হক, মোকাব্বের, ইউনুছ আলী, আ. সাত্তার ও ইসরাইল হোসেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ