দুর্গাপুরে চাঁদা না পেয়ে পাঁচটি এক্সেভেটর মেশিন ভাঙচুর

আপডেট: মার্চ ২৭, ২০২০, ৭:০২ অপরাহ্ণ

দুর্গাপুর প্রতিনিধি


রাজশাহীর দুর্গাপুরে পুকুর খননের চাঁদা না দেয়ায় পাঁচটি এক্সেভেটর মেশিন ভাঙচুর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে মজনু নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এ সময় মেশিন মালিক আবদুল মান্নান ও চালকদের হত্যার হুমকিও দেয়া হয়। এ ঘটনায় আবদুল মান্নান বাদি হয়ে দুর্গাপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। শুক্রবার সকালে বাদইল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
অভিযোগ ও প্রত্যক্ষর্দশী সূত্রে জানা যায়,আড়ইল গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম আড়ইল ও বাদইল পরিত্যক্ত ডোবা বিলে পুকুর খননের কাজ শুরু করেন। ওই খনন কাজে এক্সেভেটর মেশিন ভাড়া দেন উপজেলার চৌপুকুরিয়া গ্রামের আবদুল মান্নান। ওই পুকুরে মেশিন দিলে বাদইল গ্রামের আবদুল মজিদ ও মজনু আবদুল মান্নানের কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করলে মান্নানকে বিভিন্ন ভাবে হত্যার হুমকি দেয় তারা। শুক্রবার সকালে মান্নান মেশিনে কাছে গেলে তাকে রড় দিয়ে মাথায় আঘাত করে মজনু ও মজিদ । এসময় গাড়ীর চালকেরা এগিয়ে আসলে তারা মেশিনগুলো ভাঙচুর করে। এসময় মান্নান ও চালকেরা প্রান ভায়ে পালিয়ে যায়। পরে মজনু ও মজিদ মেশিন ভাঙচুর করে আগুন দেয়ার জন্য প্রস্তুতি নেয়। এসময় স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে মজনুকে আটক করে।
পরে মজনুর লোকজন এসে স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে তাকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়। এসময় মজনু ও মজিদ বলে তাদের ৫ লাখ টাকা না দিয়ে এক্সেভেটর (ভেকু) মেশিন এখান থেকে যেতে পারবে না। এবিষয়ে দুর্গাপুর থানার অফিসার ইর্নচাজ (ওসি) খুরশিদা বানু কনা বলেন, সকালেই ঘটনাটি মোবাইল ফোনে স্থানীয়রা জানিয়েছে। পরে মেশিনের মালিক মান্নান থানায় এসে লিখিত অভিযোগ করেছে। আমরা অভিযোগ পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। দ্রুত এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ