দুর্গাপুরে দুর্বৃত্তদের আগুনে নারী নিহত ।। এখনো থানায় মামলা হয় নি, আতঙ্কে বাড়িঘর ছাড়ছেন অনেকে

আপডেট: জানুয়ারি ১৭, ২০১৭, ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ

দুর্গাপুর প্রতিনিধি


রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার কয়ামাজপুর গ্রামে নাশকতার আগুনে পুড়ে হিন্দু ধর্মালম্বী নারী লাবণ্য প্রভা নিহতের ঘটনায় ওই এলাকায় এখনো আতঙ্ক বিরাজ করছে। ঘটনার পর অন্য হিন্দু ধর্মালম্বীরা এক ধরনের আতঙ্ক মাথায় নিয়ে এলাকা ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।
এদিকে ঘটনার পর এখন পর্যন্ত থানায় মামলা দায়ের করা হয় নি। তবে নতুন করে ওই এলাকায় অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব ও সাদা পোশাকে গোয়েন্দা সদস্যদের টহল বাড়ানো হয়েছে।
সোমবার উপজেলার কয়ামাজপুর গ্রামের ওই হিন্দু পল্লিতে গিয়ে দেখা যায়, নিহত লাবন্য প্রভার পরিবারের সদস্যরা রয়েছেন আতঙ্কের মধ্যে। প্রতিবেশীরাও আতঙ্ক মাথায় নিয়ে কেউ কেউ আত্মীয় স্বজনের বাড়ি চলে যাচ্ছেন। একেরপর এক আগুন লাগার ঘটনায় এর আগেও কয়েকজন হিন্দু ধর্মালম্বী এলাকা ছেড়েছেন। তবে নতুন করে প্রাণহানির মতো ঘটনা ঘটায় তাদের আতঙ্ক বেড়েছে কয়েকগুণ।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হিন্দু পল্লির কয়েকজন বাসিন্দা জানান, স্থানীয় কিছু লোকজন তাদের পেছনে লেগেছে। তাদের তারা চিনেন কিন্তু ভয়ে কখনো তাদের নাম প্রকাশ করতে পারেন না। তাদের উদ্দেশ্য, কোনভাবেই হিন্দু পল্লির ওইসব মানুষদের বিতাড়িত করা সম্ভব হলে জমিগুলো দখলে নেয়া যাবে। এ কারণে তাদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়াতে মাস দেড়েক আগেও খড়ের গাদায় আগুন দেয়া হয়। এরপর গত ৭ জানুয়ারি নিহত লাবন্য প্রভার বাড়ির রান্নাঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। গত রমজান মাসে এক সঙ্গে কয়েকটি বাড়ির সামনে আগুন লাগানো হয়। এভাবে একের পর এক আগুন লাগানোর ঘটনায় স্থানীয় কয়েকজন জড়িত থাকলেও ভয়ে তাদের নাম কখনোই প্রকাশ করতে পারেন না তারা।
তবে দিনের পর দিন এভাবে আগুনে পুড়বে বাড়ি ঘর আর ওই আগুনে পুড়ে লাশ হবে এক এক একটি লাবন্য প্রভা। এমন প্রশ্ন এখন হিন্দু পল¬ীর সাধারণ মানুষের চোখে মুখে।
হিন্দু পল্লির সর্বশেষ আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে দুর্গাপুর থানার ওসি রুহুল আলম বলেন, নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করা হয় নি। তবে ওই এলাকার আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে দাবি করে ওসি বলেন, এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি এড়াতে এলাকায় পুলিশী টহল জোরদার করা হয়েছে। এছাড়া র‌্যাব ৫ ও সাদা পোশাকে গোয়েন্দা সদস্যরা ওই এলাকায় টহল দিচ্ছেন। এ ব্যাপারে স্থানীয় লোকজনের সহায়ত কামনা করা হয়েছে বলেও জানান ওসি।
প্রসঙ্গত শনিবার দিবাগত রাতে দুর্গাপুরের কয়ামাজপুর গ্রামের হিন্দু পল্লির এক বাড়িতে দাহ্য পদার্থ ব্যবহার করে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। আগুনে লাবন্য প্রভা নামের নামের ষাটোর্ধ এক বৃদ্ধা পুড়ে মারা যায়। সেই সঙ্গে গবাদিপশু, বাড়ির ধান-চাল, নগদ টাকা, আসবাব পত্র ও স্বর্ণালঙ্কার পুড়ে ছাই হয়ে যায়।