দুর্গাপুরে বদ্ধ ঘর থেকে স্বামী-স্ত্রীর মৃতদেহ উদ্ধার

আপডেট: মে ১৮, ২০২২, ৯:১৮ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ও দুর্গাপুর প্রতিনিধি:


দুর্গাপুরে বদ্ধ ঘর থেকে স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১৮ মে) বেলা সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার ঝলমলিয়া ইউনিয়নের কাঁঠালবাড়িয়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন- কাঁঠালবাড়িয়া গ্রামের মৃত জাবেদ আলীর ছেলে সুলতান আলী (৪৫) ও তার স্ত্রী ইছনেহার বেগম (৩৮)। সুলতান পেশায় রিকশা চালক। তার স্ত্রী গৃহিণী। তাদের ১৭ বছর বয়সী একটি ছেলে ও ১০ বছর বয়সী একটি মেয়ে সন্তার আছে।

ঘটনার পরপরই সিআইডি এর একটি টিম আলামত সংগ্রহ করে। পর পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেন। এ ঘটনার বিষয়ে সিআইডির কর্মকর্তারা কোন মন্তব্য করেন নি।

নিহতের পুত্র বাপ্পি হোসেন জানান, তার মাদকাসক্ত পিতা সুলতান দীর্ঘদিন থেকে কোন কাজকর্ম না করে নেশাগ্রস্থ হয়ে বাড়িতে এসে তার মায়ের সাথে সবসময় ঝগড়া বিবাদে লিপ্ত থাকতো। দুপুরে বাড়িতে এসে ঘরের দরজা লাগানো দেখতে পান। অনেক ডাকাডাকির পরও দরজা না খোলায় প্রতিবেশীদের ডেকে এনে দরজা ভেঙ্গে ভিতরে ঢুকলে গলায় দড়ি দেওয়া বাবার ঝুলন্ত মরদেহ এবং মায়ের মৃতদেহ বিছানায় পড়ে থাকতে দেখেন।

পরে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় দুর্গাপুর থানায় খবর দিলে ঘটনাস্থলে আসে দুর্গাপুর থানা পুলিশ ও পুঠিয়া সার্কেল সহকারী পুলিশ সুপার ইমরান জাকারিয়া।

দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাজমুল হক জানান, এ ঘটনায় লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেলের মর্গে নেয়া হয়েছে। ময়নাতদন্তের রির্পোটের উপর নির্ভর করে মামলা হবে।

পুঠিয়ার সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইমরান জাকারিয়া বলেন, সিআইডির ক্রাইমসিন টিমকে খবর দেয়া হয়েছিলো। তারা এসে আলামত নিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সত্যতা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।