দুর্গাপুরে বৃদ্ধার আত্মহত্যা

আপডেট: জুন ১৯, ২০১৭, ১২:৫৫ পূর্বাহ্ণ

দুর্গাপুর প্রতিনিধি


দুর্গাপুর উপজেলার নারায়নপুর চিকিৎসার ব্যয়ভার মেটাতে না পেরে গলায় ফাঁস দিয়ে জরিনা বেগম (৬০) নামের এক বৃদ্ধা আত্মহত্যা করেছেন। গতকাল রোববার সকাল ৯টায় নিজ ঘরে এ ঘটনা ঘটান জরিনা বেগম। জরিনা বেগম ওই গ্রামের আবুল কাশেমের স্ত্রী। খবর পেয়ে পুলিশ জরিনা বেগমের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার নারায়নপুর গ্রামের জরিনা বেগম দির্ঘ দিন থেকে ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ জনিত রোগে ভুগছিলেন। চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করতে গিয়ে তাদের পরিবারে অভাব অনটন দেখা দেয়। এ নিয়ে প্রায় স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কলহ বিবাদ লেগেই থাকতো। গতকাল রোববার সকালে ঘটনার সময় জরিনা বেগম কাউকে কিছু না জানিয়ে নিজ ঘরের তীরের সাথে রশি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন। ছেলের বউ রিপা খাতুন দরজার ফাঁক দিয়ে দেখতে পেয়ে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করলে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে জরিনা বেগমের ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পান। পরে থানা পুলিশকে খবর দেয়া হলে পুলিশ জরিনা বেগমের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।
দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রুহুল আলম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে আত্মহত্যা কারণ সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। তবে প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে জরিনা বেগম ডায়াবেসিসহ নানা রোগে ভুগছিলেন। তিনি আরো বলেন, এ নিয়ে স্বামীর সাথে ঝগড়াঝাটির কারনেই আত্মহত্যা করে থাকতে পারে বলে ধারনা করছে পুলিশ। জরিনা বেগমের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য থানায় রাখা হয়েছে। সোমবার (আজ)রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান ওসি রুহুল আলম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ