দুর্গাপূজা উপলক্ষে পুলিশের মতবিনিময়

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৭, ১:৩৯ পূর্বাহ্ণ

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি


শারদীয় দুর্গাপূজা-২০১৭ উপলক্ষে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের আয়োজনে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় আরএমপি পুলিশ লাইনের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কমিশনার সরদার তমিজউদ্দীন আহমেদ।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, নগরীর বিভিন্ন পূজা মন্ডপ কমিটির সভাপতি/সেক্রেটারীবৃন্দ, আরএমপি’র বিভিন্ন ইউনিটের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ, রাজশাহী সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধি, এনএসআই এর প্রতিনিধি, ডিজিএফআই এর প্রতিনিধি, আনসার/ভিডিপি’র প্রতিনিধি এবং রাজশাহীর সাংবাদিক সংগঠনসমূহের সভাপতি ও সেক্রেটারিবৃন্দ।
নগর পুলিশের সহকারি কমিশনার (সদর) ইফতে খায়ের আলম এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, এবছর রাজশাহী মহানগরীতে ৭৩টি পূজা মন্ডপে পূজা উদযাপিত হবে বলে এখন পর্যন্ত জানা যায়। মতবিনিময় সভায় পূজা মন্ডপসমূহে কিভাবে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায় সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা আরো বেশি সক্রিয় করার বিষয়ে আলোচনা হয়। প্রতিটি পূজা মন্ডপে কমিটির পক্ষ থেকে স্বেচ্ছাসেবক মোতায়েনের বিষয়ে আরএমপি’র পক্ষ থেকে পরামর্শ প্রদান করা হয়। পূজা মন্ডপসমূহে পর্যাপ্ত লাইটিং/আলোর ব্যবস্থা রাখার পরামর্শ প্রদান করা হয়।
এছাড়া আতশবাজি/পটকা/বিস্ফোরক দ্রব্য ব্যবহার থেকে বিরত থাকার নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এছাড়া সভায় আগত বিভিন্ন পূজা মন্ডপ কমিটির সভাপতি/সেক্রেটারীর প্রতি আরএমপি’র পক্ষ থেকে বেশ কিছু সাধারণ নির্দেশনা প্রদান করা হয়। যেমন- প্রতিটি পূজা মন্ডপে কমিটি কর্তৃক ভেটিং করত ঃ স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ করা এবং স্বেচ্ছাসেবকদের আইডি কার্ডসহ দায়িত্বে নিয়োজিত করা, পূজা উদযাপন কমিটি কর্তৃক পূজামন্ডপে দর্শনার্থীদের ব্যাগ/পোটলা ইত্যাদি নিয়ে প্রবেশ না করার জন্য অনুরোধ করা, পূজামন্ডপ কমিটি কর্তৃক পূজামন্ডপসমূহে অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা নিশ্চিতকল্পে প্রযোজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা, পূজা কমিটি কর্তৃক সংশ্লিষ্ট পুলিশ ইউনিটের সাথে সমন্বয় করে বিসর্জনের পূর্বে শোভাযাত্রার রুট নির্ধারণ করা এবং কোন অবস্থাতেই শোভাযাত্রার রুট পরিবর্তন না করা, বিসর্জনের সময়ে স্থানীয় পূজা কমিটি কর্তৃক ভিডিও রেকডিং এর ব্যবস্থা করা, মাইক ব্যবহারে অন্যান্য ধর্মের প্রতি সম্মান রাখা এবং ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপড়ার সমস্যা না হয় তা নিশ্চিত করা, পূজা কমিটি কর্তৃক পূজা মন্ডপে সিসিটিভি/ভিডিও ধারণের ব্যবস্থা করা এবং পূজা কমিটি কর্তৃক প্রতিমা বিসর্জনস্থলে মাইক ও আলোর ব্যবস্থা করা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ