দুষ্টু রাণী

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৭, ১২:০৩ পূর্বাহ্ণ

ফারহাত সুলতানা সুন্নাহ


এক দেশে এক রাজা ছিলো। সে ছিল খুব ভালো। তার যে সম্পত্তি ছিল তা সে একা খেত না। অসহায়-গরীবদের মাঝে বিলিয়ে দিত। গরীবদের সাহায্য করতে পারলে তার খুব ভালো লাগতো। তবে তার রাণী ছিল হিংসুটে ও ধোঁকাবাজ স্বভাবের। একবার রাজার ইচ্ছে হলো তার রাজ্যের গরীব লোকদের রাজপ্রসাদে এনে দাওয়াত খাওয়াবে। রাণী তা সহ্য করতে পারল না। সে এটাকে বানচাল করতে মনে মনে ফন্দি আটতে লাগলো। সবাই এসে যখন খাওয়ার জন্য তৈরি তখন রাণী তার নিজের রুম থেকে জোরে চিৎকার করতে লাগলো। রজাসহ সবাই রুমে গেলো। তখন রাণী বললো, আমি ঘুমিয়ে গিয়েছিলাম। ঘুমের মধ্যে স্বপ্ন দেখলাম এসব ফকির লোকরা আমার সবকিছু চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে। রাজা সরল মনে রাণীর কথা বিশ্বাস করে ফেললো। সে সকল গরীব লোকদের প্রাসাদ থেকে বের করে দিলো।
তারপর আরেকদিন হলো কী? রাণীর একটা মাসীর ছেলে আছে, সে রাণীর কাছে বেড়ানোর জন্য আসল। রাণীর মাসীর ছেলের নাম ছিল তাবুমু। তাবুমুর স্বভাব খুব ভালো ছিল। তাই অল্প দিনের মধ্যেই রাজা তাকে ভালোবাসতে শুরু করলো। যা দেখে রাণী হিংসায় মরে যাচ্ছিল। তখন সে তাবুমুকে তাড়ানোর জন্য নতুন ফন্দি আটতে শুরু করলো। একদিন সে রাজাকে বললো, তাবুমু তো আমার মাসীর ছেলে, তাকে তোমার থেকে আমি খুব ভালো করে চিনি। রাজা অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করলেন, কেন? কী হয়েছে? রাণী বলল, গতকাল রাতে আমি তাবুমুর ঘরের পাশ দিয়ে যাচ্ছিলাম। শুনতে পেলাম তারা কয়েকজন মিলে তোমাকে হত্যা করে রাজ্য দখল করার ষড়যন্ত্র করছে।
রাজা তখন রাণীর মিথ্যা বলা বুঝে ফেললেন। কারণ গতকাল রাতে তাবুমু ঘরে ছিল না, রাজা তাকে নিয়ে রাজ্য দেখতে বেরিয়েছিলেন। রাণীর এমন কথা শুনে রাজা তাকে প্রসাদ থেকে বের করে দিলেন।