দেশেই যুদ্ধ বিমান তৈরি হবে সদিচ্ছায় উপায় হয়

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২১, ১২:০৯ পূর্বাহ্ণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশেই নিজেদের জন্য যুদ্ধ বিমান তৈরির আকাক্সক্ষার কথা ব্যক্ত করেছেন।
২৩ ফেব্রুয়ারি গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যশোরে বিমান বাহিনীর ঘাঁটি বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান বিমান বাহিনীর ১১ এবং ২১ স্কোয়াড্রনকে ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের একটা আকাক্সক্ষা আছে, বাংলাদেশেই যুদ্ধ বিমান তৈরি করতে চাই।
কাজেই এর ওপর গবেষণা করা এবং আমাদের আকাশসীমা আমরা নিজেরাও যেন রক্ষা করতে পারি সেভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছি। দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা করা এবং প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে আরও কয়েক ধাপ এগিয়ে যাওয়ার পদক্ষেপ আমরা নিয়েছি। ইনশাল্লাহ আমরা এ ব্যাপারে সাফল্য অর্জন করবো বলে বিশ্বাস করি। ’ এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন দৈনিক সোনার দেশ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্বপ্নবাজ মানুষ। তিনি নিজে স্বপ্ন দেখেন, দেশের মানুষকে স্বপ্ন দেখান। তিনি স্বপ্ন দেখেই ক্ষান্ত থাকেন না। সেটিকে বাস্তবে কীভাবে রূপ দেয়া যায় সে পরিকল্পনা করে এগিয়েও যান। অতএব, তিনি যখন তাঁর সদিচ্ছার কথা ব্যক্ত করেছেন সেটা অসম্ভব মনে করার কিছু নেই। সদিচ্ছায় উপায় হয়। এটা তিনি প্রমাণ করেছেন। তলাবিহীন ঝুরির তকমা লাগানো দেশ এখন আর কেউ বলেনা। বরং বিশেষজ্ঞগণ বলেন, বাংলাদেশকে দেখ এবং শেখো। বাংলাদেশ এখন বহির্বিশ্বে একটি মর্যাদার রাষ্ট্র। বাংলাদেশকে আর হেয় প্রতিপন্ন করার সুযোগ নেই। বিশ্ব নেতৃত্বেই বাংলাদেশ এখন সমুজ্জ্বল। আর সেটা সম্ভব হয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বের কারণেই। নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণের ঐদ্ধত্যপূর্ণ ঘোষণাই ছিল- বাংলাদেশের সক্ষমতার উদ্বোধন। সেটা কোনো চমক ছিল না। বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশের আত্মপ্রতিষ্ঠার ঘোষণা ছিল সেটি। বাংলাদেশ সফল হয়েছে। অনেক চড়াই-উতরাই, ঘাত-প্রতিঘাত ও সন্ত্রাস- ষড়যন্ত্রকে মোকাবেলা করেই বাংলাদেশের অর্থনীতির অগ্রগতির যাত্রা। নেতৃত্বের কী প্রখরতা বাংলাদেশের অর্থনীতি উন্নত দেশ ও সংস্থাসমূহের জন্য বিস্ময়কর আর উন্নয়নকামী দেশগুলোর জন্য অনুপ্রেরণা।
প্রধানমন্ত্রী যা বলেছেন তা তাঁর সক্ষমতার দৃঢ় অবস্থান থেকেই বলেছেন। তিনি পেরেছেন এবং পারবেন তাতে দেশের মানুষের আস্থার কমতি নেই। বাংলাদেশের তো অনেক কিছুই ছিল না- কিন্তু সেটা অর্জন করা সম্ভব হয়েছে। এবং অর্জনের নেতৃত্ব মাননীয় প্রধানমন্তক্রী শেখ হাসিনাই যোগ্যতার সাথে দিয়ে চলেছেন। হয়ত সেই দিন বেশি দূরে নেই- যেদিন বাংলাদেশ তার নিজ মেধা ও যোগ্যতা বলে যুদ্ধ বিমান তৈরি করছে দেশ-মাতৃকার সুরক্ষায়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ