দেশ বিরোধী কাজের অভিযোগ, কাশ্মীরে ১২ সরকারি কর্তা বরখাস্ত

আপডেট: অক্টোবর ২০, ২০১৬, ১০:১৫ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক
দেশবিরোধী কার্যকলাপে জড়িত থাকা এবং হিংসায় মদত দেয়ার অভিযোগে ১২ জন সরকারি অফিসারকে বরখাস্ত করল জম্মু-কাশ্মীর সরকার। প্রশাসনের কড়া নজরে রয়েছেন আরও শতাধিক সরকারি কর্তা এবং কর্মচারী।

 
বুধবার, এঁদের বিরুদ্ধে দেশবিরোধী কার্যকলাপের সুনির্দিষ্ট তথ্য প্রমাণ জম্মু-কাশ্মীর সিআইডির হাতে আসে বলে দাবি করা হয়েছে। রাজ্য সরকারকে দেয়া সিআইডির সেই রিপোর্টের ভিত্তিতেই বৃহস্পতিবার তাঁদের বরখাস্ত করা হয়। অপসারিত এই ১২ জনে অধিকাংশই বিভিন্ন সরকারি দফতরে কর্মরত মধ্যম গ্রেডের সরকারি অফিসার।

 
হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গি বুরহান ওয়ানির হত্যার পর উত্তাল হয়ে উঠেছিল কাশ্মীর। গোটা জম্মু-কাশ্মীর জুড়ে শুরু হয়ে গিয়েছিল বিক্ষোভ, পথ অবরোধ। ৮ জুলাই থেকে শুরু হওয়া সেই বিক্ষোভ সামাল দিতে অবশেষে কাশ্মীর জুড়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য কার্ফু জারি করে কেন্দ্র। পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘাতে ৯০ জনের মৃত্যু হয়। ১২ হাজারেরও বেশি জখম হন। গ্রেফতার করা হয় ৯,০০০ বিক্ষোভকারীকে। কাশ্মীর জুড়ে এমন উত্তাল পরিস্থিতির পিছনে বেশ কয়েক জন সরকারি কর্তা এবং কর্মীরও ইন্ধন আছে বলে খবর আসে গোয়েন্দাদের কাছে। তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয় সিআইডি-কে। তদন্তে নেমে এই ১২ জনের বিরুদ্ধে বেশ কিছু তথ্য প্রমাণ হাতে পায় সিআইডি। সন্দেহের তালিকায় রয়েছেন আরও অনেকে।

 
এই নিয়ে দ্বিতীয় বার দেশ বিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগে সরকারি অফিসারদের বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নিল জম্মু-কাশ্মির সরকার। এর আগে ১৯৯০ সালে বিচ্ছিন্নতাবাদী মতাদর্শ প্রচারের জন্য পাঁচ জন অফিসারকে অপসারণ করা হয়েছিল। সেই পাঁচ জনের একজন ছিলেন নাইম আখতার। বর্তমানে নাইম আখতার মেহবুবা মুফতি সরকারের শিক্ষা মন্ত্রী। ১৯৯০ সালে তিনি আবগারি দফতরের ডেপুটি কমিশনার ছিলেন।- আনন্দবাজার পত্রিকা