দোকানদারের থেকে বিকাশে টাকা নিয়ে লাপাত্তা রাবি ছাত্রলীগ নেতা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক:


বন্ধুকে চিকিৎসা করানোর কথা বলে দোকানদারের থেকে টাকা নিয়ে লাপাত্তা হয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক ছাত্রলীগ নেতা। গত সোমবার দুপুর ১২ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক দোকানদারের সঙ্গে এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা লাপাত্তা রয়েছে এবং তার মুঠোফোনও বন্ধ রয়েছে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদার বখস্ হল সংলগ্ন ‘আতিক টেলিকম’র মালিক আতিকুর রহমান। অপরদিকে অভিযুক্ত হলেন মাদার বখস্ হল শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক তামিম হাসান। তিনি বিশ^বিদ্যালয় শাখা সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুর অনুসারী বলে জানা গেছে।

জানতে চাইলে ভুক্তভোগী দোকানদার মো. আতিকুর রহমান বলেন, গত ২৬ সেপ্টেম্বর দুপুর অভিযুক্ত তামিম আমার দোকানে এসে নিজের পরিচয় দিয়ে বলে যে তার এক বন্ধু অ্যাক্সিডেন্ট করেছে। এজন্য সিটি স্ক্যান করতে জরুরি টাকা পাঠাতে হবে। আর তার আরেক বন্ধু তার বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে আসছে। টাকাটা নিয়ে আসলে আমাকে দিয়ে দিবে। তারপরও আমি টাকা পাঠাতে না চাইলে, সে আমাকে বিভিন্নভাবে বোঝায়। এরপর আমি তার দেওয়া নম্বরে সোমবার বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে ৪ হাজার টাকা পাঠিয়ে দিই। এরপরে সে চা খেতে গিয়ে আর আসেনি দোকানে। তার সাথে কোনোভাবে যোগাযোগও করতে পারছিনা।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত তামিম হোসেনের ফোনে কল দেওয়া হলে তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। এছাড়া হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি হামীম রেজা শাফায়েতের মুঠোফোনও বন্ধ পাওয়া যায় এবং সাধারণ সম্পাদক শফিউর রহমান রাথিককে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ করেন নি।

সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, এ ধরণের ঘটনার কথা আমি আগে শুনিনি। কারোর কাছে থেকে যদি টাকা নিয়ে থাকে আমরা বিষয়টি দেখব। সে ধার হিসেবে নিয়েছে, না কি কারণে বিষয়টি তো আমার জানা নেই। আমি কথা বলে বিষয়টি দেখব।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ