ধর্ষণের অভিযোগে শিশু গ্রেপ্তার: ওসিসহ সাত পুলিশকে বরখাস্তের নির্দেশ

আপডেট: জুন ১৩, ২০২১, ১০:১৭ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


বরিশালের বাকেরগঞ্জে ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশু গ্রেপ্তারের মামলা অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করে হাই কোর্ট ওসিসহ সাত পুলিশ সদস্য ও সমাজসেবার প্রবেশন কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত এবং বিচারিক হাকিমের ফৌজদারি বিচারিক ক্ষমতা প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছে।
গত বছর ধর্ষণের অভিযোগে এই চার শিশুর বিরুদ্ধে নেওয়া ফৌজদারি ব্যবস্থার বৈধতা প্রশ্নে জারি করা রুল যথাযথ ঘোষণা করে রোববার এই রায় দিয়েছে বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কামরুল হোসেন মোল্লার ভার্চুয়াল হাই কোর্ট বেঞ্চ।
আদালত একই সঙ্গে শিশু আইন অনুযায়ী শিশুবান্ধব পুলিশ কর্মকর্তা, শিশু কল্যাণ ডেস্ক ও শিশু বিষয়ক কল্যাণ কর্মকর্তার (সিএপিও) দায়িত্ব এবং বাধ্যবাধকতা বিজ্ঞপ্তি আকারে প্রকাশ করে দেশের সব থানায় সরবরাহ করতে স্বরাষ্ট্র ও সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছে।
বাকেরগঞ্জে গত বছর ৬ অক্টোবর ছয় বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশুকে আসামি করে এই মামলা করা হয়। ওই দিনই চার শিশুকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
পরদিন ৭ অক্টোবর বরিশালের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম এনায়েত উল্লাহ এক আদেশে চার শিশুকে যশোর পুলেরহাট শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর আদেশ দেয়।
রোববার হাই কোর্ট ধর্ষণের এই মামলা অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করে রায় দিয়েছে।
এই রায়ে আইন অমান্য করে শিশুদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি ব্যবস্থা (ধর্ষণের মামলা দেওয়া) গ্রহণে যুক্ত বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি), দুই উপপরিদর্শক (এসআই) এবং শিশুদের গ্রেপ্তারের সঙ্গে যুক্ত চার পুলিশ সদস্যসহ মোট সাত পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
স্বরাষ্ট্র সচিব ও পুলিশের মহাপরিদর্শককে এই নির্দেশ দিয়েছে আদালত।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ