ধামইরহাটে সোনার দোকানে দুর্ধর্ষ চুরি

আপডেট: জানুয়ারি ২৯, ২০২০, ১২:২৬ পূর্বাহ্ণ

ধামইরহাট প্রতিনিধি


নওগাঁর ধামইরহাটে সোনার দোকানে দুর্ধর্ষ চুরি সংঘটিত হয়েছে। গত সোমবার মধ্যরাতে উপজেলার আমাইতাড়া বাজারে উমর জুয়েলার্সের সিঁন্দুক কেটে চোরেরা সোনার গহনা,নগদ টাকাসহ প্রায় ২২ লাখ টাকার মালামাল লুট করে। পুলিশের উর্দ্বতন কর্মকর্তাগণ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
জানা গেছে, উপজেলা সদর থেকে প্রায় দেড় কিলোমিটার পশ্চিমে আমাইতাড়া বাজারের জিরো পয়েন্টে উমর জুয়েলার্সে এই দুর্ধর্ষ চুরি সংঘটিত হয়। চোরেরা পিছনের ছাট একটি লোহার শীটের দরজা কেটে দোকান ঘরে প্রবেশ করে। দোকানে রক্ষিত সিঁন্দুকের পাল্লা কেটে প্রায় ৩৫ ভরি সোনার গহনা, ৯০ ভরি রুপা এবং নগদ প্রায় ৬০ হাজার টাকা নিয়ে যায়। ওই বাজারে ৪ জন নৈশ্যপ্রহরী ও পুলিশের টহলদল থাকায় চোরেরা পিছনের অনেকটা অনিরাপদ ও দূর্বল দরজা কেটে সহজে দোকানে প্রবেশ করে।
এব্যাপারে উমর জুয়েলার্সের স্বত্বাধিকারী মো.মোকারম হোসেন উজ্জল বলেন,গত সোমবার রাত ৯টার দিকে তিনি দোকান বন্ধ করে বাড়িতে যান। পরদিন মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে দোকানের কর্মচারী টিটুকে নিয়ে তিনি দোকান ঘর খুলে দেখেন সিঁন্দুক কেটে চোরেরা প্রায় ৩৫ ভরি স্বর্ণ,৯০ ভরি রুপা ও নগদ প্রায় ৬০ হাজার টাকা নিয়ে যায়। এতে তিনি প্রায় ২২ লাখ টাকার ক্ষতির সম্মুখিন হন। প্রতিবন্ধি মোকারম হোসেন উজ্জল আরও বলেন,বিভিন্ন সংস্থা ও ব্যাংক থেকে তিনি ঋণ নিয়ে ব্যবসা শুরু করেছিলেন। এছাড়া মহাজনের কাছে প্রায় ৫/৬ লাখ টাকা বাকী রয়েছে। দোকানের সকল সম্পদ হারিয়ে তিনি নিঃস্ব হয়েছেন।
ধামইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো.শামীম হাসান সরদার বলেন,ওই বাজারে বণিক সমিতির নৈশ্যপ্রহরী ও থানা পুলিশের একটি টহল দল ছিল। সামনে টহল দল থাকলেও দোকানের পিছনে অত্যান্ত অনিরাপদ থাকার সুযোগে চোরেরা সহজে দূর্বল দরজা কেটে দোকানে প্রবেশ করে। ঘটনাস্থল নওগাঁর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) রাকিবুল আক্তার ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহাদেবপুর সার্কেল আবু সালেহ মো.আশরাফুল আলম পরিদর্শন করেছেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল।