নওগাঁয় আদালতে জামিন নিতে গিয়ে কারাগারে গেলেন বিএনপির সাত নেতাকর্মী

আপডেট: মার্চ ৫, ২০২৪, ২:০১ অপরাহ্ণ


আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগর উপজেলায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে করা মামলায় বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের ৭ নেতা-কর্মীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। তারা সবাই হাইকোর্ট থেকে ছয় সপ্তাহের আগাম জামিনে ছিলেন। মঙ্গলবার (৫ মার্চ) দুপুরে আদালতে হাজির হয়ে পুনরায় জামিন আবেদন করলে তা নামঞ্জুর হয়। জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আবু শামীম আজাদ আসামীদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন ।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন আসামীদের আইনজীবী সাব্বির হোসেন বলেন, আদালত তাদের সবাইকে কারাগারে পাঠিয়েছেন। আমরা পরবর্তীকালে আবার জামিন চাইব। কারাগারে পাঠানো বিএনপির নেতা-কর্মীরা হলেন রাণীনগর উপজেলা যুগ্ন আহ্বায়ক মোসাররফ হোসেন, ফরহাদ আলী মন্ডল ও আতিকুজ্জামান, সদস্য এইচএম নয়ন খান লুলু, উপজেলা যুবদলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ন আহ্বায়ক মোজাক্কির হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব মাহবুব হাছান ও বড়গাছা ইউনিয়ন যুবদলের যুগ্ন আহ্বায়ক একলাস আলী মন্ডল।

আদালত সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ২ নভেম্বর রাত সাড়ে ১০টার দিকে রাণীনগর উপজেলার ঝিনা এলাকায় দলীয় সভা শেষে যুবলীগের ১০-১৫ কর্মী মোটরসাইকেল করে বাড়ি ফিরছিলেন। ফেরার পথে ঝিনা-রাণীনগর সড়কের দিঘীরপাড় ছোট ব্রিজ এলাকায় পৌঁছালে তাঁদের ওপর হামলা ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই দিন রাতেই জয়নাল সরদার নামে এক যুবলীগ কর্মী বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের ৮ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতপরিচয়ে আরও ৩০ থেকে ৩৫ জনের বিরুরদ্ধ বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলা করেন। এ মামলায় ওই ৮ নেতাকর্মী ৬ সপ্তাহ আগে হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন পান।

জামিনের মেয়াদ শেষে মঙ্গলবার (৫মার্চ) জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে মামলার এজাহার ভুক্ত বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের ৭ নেতাকর্মী পুনরায় জামিনের আবেদন করেন। আসামীদের জামিনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সাব্বির হোসেন। আর জামিনের বিরোধীতা করে শুনানি করেন রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুুলি আব্দুল খালেক। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ওই সাত নেতাকর্মীর জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন জেলা ও দায়রা জজ আবু শামীম আজাদ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ