নওগাঁয় নৌকার ভোট করায় দোকান ঘর হারালেন মোজাফ্ফর

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২৪, ১২:২০ অপরাহ্ণ


নওগাঁ প্রতিনিধি: জেলার মান্দার পরাণপুর ইউনিয়নের গোপালপুর বাজারে নৌকার ভোট করায় মোজাফ্ফর হোসেন নামের এক ব্যক্তির দোকানঘর দখল করে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিজয়ী স্বতন্ত্র এমপির সমর্থক নিজের খাস জায়গায় নির্মিত দোকান ঘর দাবি করে জোরপূর্বক তালা ঝুলিয়ে বন্ধ করে রেখেছে। এতে করে যে কোনো সময় সংঘর্ষ হওয়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

ওই দোকানঘর দীর্ঘদিন দখলে থাকা নৌকা সমর্থিত পরানপুর গ্রামের মৃত-আব্দুল মজিদের ছেলে মোজাফ্ফর হোসেন বলেন গোপালপুর বাজারে প্রায় ২৪ বছর যাবত খাস জায়গার গর্ত পূরণ করে তার উপর একটি দোকানঘর নির্মাণ করে ভোগদখল করে আসছেন। কয়েক বছর যাবত তিনি দোকান ঘরটি অন্যের কাছে জামানতের মাধ্যমে ভাড়া দিয়ে রেখেছেন। সম্প্রতি শেষ হওয়া জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার পক্ষে কাজ করার অভিযোগে বিজয়ী এমপির ট্রাক প্রতিকের সমর্থক গোপালপুর বাজারের মৃত ইয়াকুবের ছেলে কালাম আমাকে কোনো কিছু না জানিয়ে দোকানের ভাড়াটিয়েকে জামানতের টাকা ফেরত দিয়ে দখল করে নেয়।

পরবর্তিতে এ বিষয়ে কথা বলতে গেলে কালাম আমাকে মারপিট করে এবং প্রাণনাশের হুমকি-ধামকি প্রদান করে আসছে। আমি বিষয়টি পুলিশ প্রশাসনকে জানালে তারা এখন পর্যন্ত কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। এমতাবস্থায় আমার একমাত্র আয়ের উৎস দোকান ঘরটি হারিয়ে এখন দিশেহারা। আমি সরকারের কাছে এই বিষয়ে একটি সুষ্ঠু সমাধান চাই।

দোকান ঘরে তালা দেয়ার বিষয়ে আরেক দোকানদার অভিযুক্ত কালাম বলেন, এই পুরো খাস জায়গা তার। বর্তমানে দোকানের পেছনে থাকা বাড়িতে যেতে বড় একটি রাস্তার প্রয়োজন। তাই ওই দোকানঘরটি ভেঙ্গে প্রশস্ত একটি রাস্তার জন্য ওই দোকানে থাকা লোককে জামানতের ২৫ হাজার টাকা ফেরত দিয়ে দোকানঘর আমার দখলে নিয়েছি।
আর এই খাস জায়গার মালিক যেহেতু আমি তাই দোকান ঘরটি ছেড়ে দিতে মোজাফ্ফরকে অনেকবার বলেছি কিন্তু সে দোকানঘর ছাড়েনি।
পরাণপুর ইউপি চেয়ারম্যান উজ্জ্বল হোসেন বলেন, কালাম যেহেতু বিজয়ী এমপির সমর্থক তাই সে জোরপূর্বক এমন কাজ করেছে। আমি বিষয়টি স্থানীয়ভাবে সমাধান করতে পারিনি। কালামও কাগজপত্র বিহীন ওই খাস জায়গা দীর্ঘদিন যাবত জোবরদখল করে আসছে।

আর যেহেতু দীর্ঘদিন যাবত মোজাফ্ফর ওই দোকানটি নির্মাণ করে ভোগদখল করে আসছে তাই সেই ওই দোকানঘরের প্রকৃত মালিক। বিষয়টি দ্রুত আইনিভাবে সমাধান করা প্রয়োজন বলে আমি মনে করছি।
মান্দা থানার ওসি মোজাম্মেল হক কাজী বলেন, এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।