নওগাঁয় এক দম্পতির ক্ষমতার অপব্যবহারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

আপডেট: জুলাই ৬, ২০১৭, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

নওগাঁ প্রতিনিধি


নওগাঁয় এক দম্পতির ক্ষমতার অপব্যবহারে অতিষ্ঠ হয়ে মানববন্ধন করে এলাকাবাসী -সোনার দেশ

জয়পুরহাট জেলা কারাগারে কর্মরত হিসাবরক্ষক মহসীন আলী ও তার স্ত্রী জিয়াসমিন বুলবুলীর বিরুদ্ধে জমি জবর দখল, প্রতিবেশীদের হুমকি দিয়ে তটস্থ রাখা ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। তিনি কারাগারের হিসাবরক্ষকের চাকরি করেন। কিন্ত এলাকায় জেল সুপার ও জেলার পরিচয়ে সাধারণ মানুষকে হয়রানি করার অভিযোগ রয়েছে।
এ দম্পতির অত্যাচারে প্রতিবেশীরা ইতোমধ্যে নওগাঁ পৌরসভায় চারটি অভিযোগ, নওগাঁ সদর মডেল থানায় একটি জিডি, এবং নওগাঁ জেলা জজ কোর্টে দুইটি মামলা করেছেন। অভিযোগকারীদের মধ্যে আপন বোন জামাইসহ রয়েছে প্রতিবেশী। চলাচলের রাস্তা না দিয়ে কয়েকটি পরিবারকে অবরুদ্ধ করে অবৈধভাবে প্রাচীর নির্মাণ এবং জোরপূর্বক অন্যের জায়গায় সীমানা পিলার স্থাপন করার অভিযোগে এলাকার কয়েকশো ভুক্তভুগী নওগাঁ শহরের মুক্তির মোড়ে মানববন্ধন করে প্রতিকার দাবি করেছে।
ভুক্তভুগীদের মধ্যে স্থানীয় পিটিআই ট্রেনিং ইন্সটিটিউটের শিক্ষক মোজাম্মেল হক বলেন, মহসীন ও তার স্ত্রী জিয়াসমিন বুলবুলী গত বেশ কিছুদিন আগে জোর করে আমার সীমানা দখল করে নেয়। এ বিষয়ে নওগাঁ পৌরসভায় অভিযোগ দেন মোজাম্মেল হক। অভিযোগের সূত্র ধরে গত মে মাসের ১৮ তারিখে নওগাঁ পৌরসভা থেকে জমি জরিপ করে মহসীন তার অবৈধ দখল অংশ থেকে সরে আসে। মোজাম্মেল হক বলেন, চাকরির প্রভাব সব ক্ষেত্রে খাটানোর চেষ্টা করছেন মহসীন ও তার স্ত্রী।
অপরদিকে চকদেব দুর্গাপুর সড়ক সংলগ্ন মহসীনের স্ত্রীর নামীয় জমিতে প্রতিবেশীদের চলাচলের রাস্তা না দিয়ে অবৈধভাবে প্রাচীর নির্মাণ কাজ শুরু করে। এতে মহসীনের আপন বোনসহ কয়েকটি পরিবার অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে গত ৭ এপ্রিল নওগাঁ পৌর সভায় অভিযোগ দেন ভুক্তভুগী সিরাজুল ও মহসীনের বোন জামাই ফিরোজ-উল ইসলাম। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে নওগাঁ পৌরসভা তদন্ত সাপেক্ষ গত ২৩ এপ্রিল ওই অবৈধ প্রাচীর ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেন। কিন্ত পৌরবিধির তোয়াক্কা না করে অবৈধ প্রাচীর বহাল রাখেন তিনি। এতে চলাচল ব্যহত হচ্ছে কয়েকটি পরিবারের। অবৈধ প্রাচীর সরিয়ে চলাচলের রাস্তার দাবিতে গত ১৪ জুন ওই মহল্লার কয়েকশো বাসিন্দা মহসীন ও তার স্ত্রীর অপতৎপতার বিরুদ্ধে শহরের মুক্তির মোড়ে মানববন্ধন করে। ভুক্তভুগীরা দাবি করেন মহসীন ও তার স্ত্রী তাদের তিনতলা বাড়ি দুর্গাপুর সড়কের দুইফিট জায়গা দখল করে গড়ে তুলেছেন। কিন্ত জনসাধারণের চলচলের জন্য জায়গা ছাড়তে করছেন নানা টালবাহানা।
ভুক্তভুগীরা জানান, মানববন্ধন করার পর বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকি দিয়ে আসে মহসীন ও তার স্ত্রী জিয়াসমিন বুলবলী। মহসীনের প্রতিবেশী সিরাজুল ইসলাম জানান, ক্ষমতার অপব্যহার করে আমার বাড়ির সামনে জোর করে একটি পিলার পুঁতে গেছে মহসীন ও তার স্ত্রী। তিনি আরো বলেন, নিজের অবৈধভাবে দখল করা জমির সঠিক পরিমান যেন অন্যরা জানতে না পারে এজন্য গত ১৯ এপ্রিল গভীর রাতে আমাদের সীমানা পিলার তুলে ফেলে মহসীন ও তার স্ত্রী। মহসীনের অপতৎপরতার শিকার তার আপন বোন।
তার বোন জামাই ফিরোজ উল ইসলাম জানান, পৌর বিধি অনুযায়ী চলাচলের রাস্তার জন্য উভয় পাশের জমির মালিককে সোয়া তিনফিট জায়গা ছাড়তে হবে। কিন্ত মহসীন অলী মাত্র দেড়ফিট ছেড়ে অন্যের জায়গায় প্রাচীর তুলে এখন হুমকি ধামকি দিয়ে বেড়াচ্ছেন। চলাচলের রাস্তার দাবিতে ফিরোজ উল ইসলাম বাদী হয়ে নওগাঁ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গত ২ জুলাই দুইটি মামলা দায়ের করেন। এছাড়া ফিরোজ উল ইসলাম তার জানমালের নিরাপত্তা ও মহসীন ও তার স্ত্রীর বেপরোয়া আচরনের প্রতিকার চেয়ে গত ৪ জুন নওগাঁ সদর থানায় একটি জিডি করেন। এ ব্যাপারে মহসীন আলীর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন সব অভিযোগ সঠিক নয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ