নওগাঁয় গণপিটুনিতে আহত ব্যক্তির মৃত্যু

আপডেট: মার্চ ২৫, ২০১৭, ১২:২৩ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



নওগাঁর বদলগাছি উপজেলায় চোর সন্দেহে আবদুল মজিদ (২৫) নামে এক ব্যক্তিকে গণপিটুনি দেয়া হয়েছে। পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে রামেক মর্গে আবদুল মজিদের মরদেহের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। পরে মরদেহ পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। নিহত ব্যক্তি নওগাঁর মান্দা উপজেলার দন্তেশ্বর গ্রামের আবদুল খালেকের ছেলে। নিহতের বড় ভাই রতন হোসেন (২৮) বলেন, বদলগাছি উপজেলার রাজাপুর গ্রামে গত বুধবার রাতে এলাকাবাসী চোর সন্দেহে আবদুল মজিদকে গণপিটুনি দেন। এরপর সকালে পুলিশ তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে। পরে তাকে বদলগাছি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার আরও অবনতি হলে তাকে রামেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালে তাকে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে ওই দিনই বেলা ১১টার দিকে তার মৃত্যু হয়।
রতন হোসেন বলেন, ‘আমার ভাই চোর না। আমার ভাই কৃষক, দিনমজুর। ভাইকে আমার পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হলো। ভাইয়ের আমার স্ত্রী-সন্তানটা অনাথ হয়ে গেল। আমি থানায় হত্যামামলা দায়ের করব।’
এ বিষয়ে কথা বলতে গতকাল দুপুরে বদলগাছি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) মোবাইলে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। তাই এ ব্যাপারে পুলিশের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ