নওগাঁ-১ আসনে আ’লীগের একক প্রার্থী থাকলেও বিএনপির একাধিক

আপডেট: জুলাই ১০, ২০১৭, ১২:২৩ পূর্বাহ্ণ

সাপাহার প্রতিনিধি


আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নওগাঁ-১ (সাপাহার-পোরশা-নিয়ামাতপুর) আসনে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী থাকলেও বিএনপির মনোনয়ন পেতে একাধিক নেতা মরিয়া হয়ে উঠেছেন। মনোনয়ন পেতে ইতোমধ্যে কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ ও লবিং ছাড়াও মাঠপর্যায়ে গণসংযোগ করে চলেছেন তারা।
এ আসনে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক বর্তমান সাংসদ বাবু সাধন চন্দ্র মজুমদার। বিএনপির সম্ভাব্যদের তালিকায় রয়েছেন জেলা বিএনপির সাবেক কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ও পোরশা উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক তরুন নেতা মাসুদ রানা, সাপাহার উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক অধ্যক্ষ আবদুুন নূর, নিয়ামাতপুর উপেজলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সাংসদ ডা. ছালেক চৌধুরী, একই উপজেলার বিএনপির সহসভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ইঞ্জিনিয়ার শাহ খালেদ চৌধুরী পাহিন। জাতীয় পার্টি থেকে পোরশা উপজেলা সভাপতি আকবর আলী কালু একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন। এ আসনে গত ২০০৮ সালের নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী সাবেক সাংসদ ডা. ছালেক চৌধুরীকে বিপুল ভোটে পরাজিত করে প্রথমবারের মতো নির্বাচিত হন সাংসদ বাবু সাধন চন্দ্র মজুমদার। গত ২০১৪ সালের নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের জেলা সাধারণ সম্পাদক বাবু সাধন চন্দ্র মজুমদার দ্বিতীয় বারেরমতো নির্বাচিত হন। জয়ের পর থেকে এ আসনে তিনি ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। সে হিসেবে এ আসনে আওয়ামী লীগ একক প্রার্থী সাংসদ সাধন চন্দ্র মজুমদারের জয়ের ব্যাপারে খুবই আশাবাদী।
এ আসনে বিএনপিতে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী থাকায় কেন্দ্রীয় বিএনপির সঠিক সিদ্ধান্ত না নিতে পারলে আভ্যন্তরীন কোন্দলের শিকার হয়ে দলীয় প্রার্থীকে ভোটের রাজনীতিতে চরমমূল্য দিতে হবে অভিমত দলটির একাধিক শীর্ষ নেতার। বর্তমানে কেন্দ্রীয় নেতাদের চাপের মুখে পড়ে ঘরোয়া ভাবে নানা কর্মসূচি পালনের মাধ্যমে সাংগঠনিকভাবে সকল ইউনিটকে গুছিয়ে নিচ্ছেন স্থানীয় বিএনপি নেতৃবৃন্দ।
বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে ইতোমধ্যে তরুন নেতা মাসুদ রানা মনোনয়ন পেতে লবিংয়ের পাশাপাশি এলাকায় ব্যাপক গণসংযোগ ও প্রচার-প্রচারণা করে যাচ্ছেন।
গত ২০০৮ সালে সংসদ নির্বাচনে বিএনপির পরাজিত প্রার্থী ও সাবেক সাংসদ ডা. ছালেক চৌধুরী এবারও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন প্রার্থিতার বিষয়ে। এ আসনে সাপাহার উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক অধ্যক্ষ আবদুুন নূর আগামী নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী বলে জানিয়েছেন। বিএনপির মনোনয়ন পেতে মোস্তাফিজুর রহমান ও পাহিন চৌধুরীও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে। তবে কেন্দ্র যাকে মনোনয়ন দেবে তিনিই হবেন এ আসনের প্রার্থী।
এ আসনে আগামী নির্বাচনে বর্তমান সাংসদ বাবু সাধন চন্দ্র মজমুদার আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী হওয়ায় বিএনপি তাদের প্রার্থিতা নিয়ে কঠিন হিসাব-নিকাশ করছে বলে জানা গেছে।
জামায়াত নিবন্ধন হারিয়ে অবস্থান করছে কৌশলী ভূমিকায়, ইসলামী ফ্রন্টসহ জোট-মহাজোটের বাইরে থাকা ছোটখাট দলগুলো রাজনৈতিক মাঠে পা ফেলছেন অনেকটা সর্তকভাবে। নির্বাচনে আরো প্রায় দেড় বছর বাকী থাকলেও ক্ষমতাসীন দলের একক প্রার্থী বর্তমান সাংসদ বাবু সাধন চন্দ্র মজুমদার নিজ নির্বাচনী এলাকা নওগাঁ-১ (সাপাহার- পোরশা-নিয়ামাতপুর) এর সকল ইউপিতে ব্যাপক গণসংযোগ শুরু করে দিয়েছেন। রমজান মাসে ইফতার পার্টিসহ নানা কর্মসূচিতে সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি দলের সকল ইউনিটকে ঐক্যবদ্ধ রাখতে কাজ করছেন। শুধু রাজনৈতিক কর্মসূচিতেই নয় আ’লীগের শীর্ষ নেতারাসহ বাবু সাধন চন্দ্র মজুমদার অংশ নিচ্ছেন বিভিন্ন সামাজিক, ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে। সেখানেও তারা তাদের সরকারের উন্নয়ন চিত্র জনসম্মুখে তুলে ধরছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ