নওগাঁ-৬ আসনে যুদ্ধ হবে লীগে লীগে আ’লীগ-জাপাসহ আট প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ, চারজনের বাতিল

আপডেট: ডিসেম্বর ৫, ২০২৩, ১১:৫২ পূর্বাহ্ণ


আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি:


নওগাঁর ছয়টি আসনের মধ্যে অধিকগুরুত্বপূর্ণ আসনটি হচ্ছে সংসদীয় আসন ৫১ আর জেলা ভিত্তিক নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর)। চারদলীয় জোট সরকারের আমলে সন্ত্রাসী দল পূর্ব বাংলা কমিউনিস্ট পার্টি নামক সর্বহারাদের প্রকাশ্যে জবাই করে হত্যা এবং তাদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডকে প্রতিহত করতে জেএমবি নামক আরেক সন্ত্রাসী দলের হত্যা এবং লুটপাটের কর্মকাণ্ডের কারণে এই আসনটি সারা বিশ্বব্যাপী পরিচিত পেয়েছিলো রক্তাক্ত জনপদ নামে। যার ফলে আসনটি তখন থেকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে জায়গা দখল করে নেয়।

আসন্ন সংসদ নির্বাচনে এই আসনে আ’লীগ, জাতীয় পার্টি ও আ’লীগের স্বতন্ত্রসহ ৮জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। একই সঙ্গে চারজন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। তবে শেষ পর্যন্ত যদি আ’লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে তাহলে আ’লীগে আ’লীগে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলে মনে করছেন এই আসনের ভোটাররা। আ’লীগের দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী দীর্ঘদিন যাবত এই আসনে নৌকার পক্ষে কাজ করে আসছেন।

ফলে তাদেরও একটি ভাবমূর্তি এই আসনের সাধারণ মানুষের কাছে সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছেন আ’লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। আগামী ৭ জানুয়ারি নির্বাচনের মাধ্যমে আ’লীগের তিনজন হেভিওয়েট প্রার্থীদের মধ্যে কোন প্রার্থী এই আসনের সাধারণ মানুষদের কাছে সবচেয়ে বেশি গ্রহণযোগ্যতা তৈরি করতে পেরেছেন সেই ফলাফল দেখার অপেক্ষায় এই আসনের সর্বস্তরের মানুষ।

মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর চূড়ান্ত বাছাই শেষে সোমবার (৪ ডিসেম্বর) বিকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে নওগাঁ-৬ সংসদীয় আসনে বৈধ ও বাতিল হওয়া প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. গোলাম মওলা। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনে অংশ নিতে মোট ১২জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলো। এদের মধ্যে এদিন বাছাইয়ে চারপ্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল ও আটজনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

মনোনয়নপত্র বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী ও বর্তমান এমপি আনোয়ার হোসেন হেলাল, স্বতন্ত্রপ্রার্থী জেলা আ’লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. ওমর ফারুক সুমন, রাজশাহী মহানগর আ’লীগের সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. নওশের আলী, আ’লীগ নেতা ড. জাহিদুর ইসলাম, জাতীয় পার্টির প্রার্থী আবু বেলাল হোসেন জুয়েল, তৃণমূল বিএনপির পিকে আব্দুর রব, বাংলাদেশ কংগ্রেস এর সরদার মো. আব্দুস ছাত্তার ও জাকের পার্টির রবি রায়হান।

আর মনোনয়নপত্রের সঙ্গে সংসদীয় এলাকার ১শতাংশ ভোটারের সম্মতিসূচক স্বাক্ষর তালিকায় অসঙ্গতিসহ বিভিন্ন ত্রুটি থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী নাহিদ ইসলাম বিপ্লব, এম এ রতন ও শাহজালাল উদ্দীনের মনোনয়ন ফরম বাতিল করা হয়। এছাড়া ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) প্রার্থী খন্দকার ইন্তেখাব আলম হলফনামায় স্বাক্ষর না করায় তার মনোনয়ন ফরম বাতিল করা হয়েছে।