নগরীতে কেজি দরে কেনা পোশাকের পসরা

আপডেট: ডিসেম্বর ৮, ২০২১, ১২:১১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহী নগরীর ফুটপাতে মিলছে জাপান, তাইওয়ান, কোরিয়াসহ বিভিন্ন দেশের ব্যবহৃত শীতের পোশাক। ফুটপাত ব্যবসায়ীরা কেজি দরে ওইসব কিনে এনে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় পসরা সাজিয়ে বসেছেন। বিক্রি করছেন প্রতি পিস মূল্যে। তুলনামূলক সা¯্রয়ী মূল্যে এসব পোশাক কিনতে ভিড় জমাচ্ছেন নিম্ন আয়ের মানুষ।

ব্যবহৃত ওাসিব পোশাক বিদেশ থেকে আমদানি করা হয় বলে জানাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। পোশাকগুলো চট্টগ্রাম, রংপুর, সৈয়দপুর, নাটোর, ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের বাজার থেকে কেজি দরে কিনে আনেন এই ব্যবসায়ীরা। ৮০ কেজি ওজনের ১ বেল্ট কাপড়ের দাম পড়ে ২৪ হাজার টাকা। এসব পোশাক ফুটপাতে তারা বিক্রি করছেন প্রতিপিস ১০০ থেকে শুরু করে ১ হাজার টাকায়।
নগরীর কোর্ট বাজার এলাকায় ফুটপাতের পোশাক বিক্রেতা হাবিবুর রহমান (৪৮) জানান, তিনি ২০ বছর ধরে এই ব্যবসা করছেন। প্রতি শীতেই বেচাকেনা ভালোই জমে। শীত বেশি পড়লে বেচাকেনা অনেক বেড়ে যায়। তবে এসব পোশাকের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় প্রতিবছর পোশাকের দামও বাড়ছে। গত বছর ১ বেল্ট কাপড় ১৭ হাজার টাকায় কিনেছিলাম। এবছর ২৪ হাজার টাকায় কিনতে হচ্ছে। দুইবছরের ব্যবধানে প্রায় দ্বিগুন দাম বেড়েছে।

তিনি জানান, বেচাকেনা এখনও জমে উঠেনি। গড়ে প্রতিদিন ৪ থেকে ৫ হাজার টাকার পোশাক বিক্রি করেন। খুব শীত পড়লে ১০-১২ হাজার টাকা পর্যন্ত হয়। তবে এখন দিনে ১ হাজার থেকে ২ হাজার টাকার পোশাক বিক্রি হচ্ছে।
কাশিয়াডাঙ্গা হাড়–পুরের ব্যবসায়ী মুকুল শেখ (৬২) জানান, চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জ বাজার থেকে বেল্টের সামগ্রী নিয়ে এসে খুচরা দরে বিক্রি করছেন। এক বেল্টে ২০০ থেকে ৩০০ পিস কাপড় থা

কে। সেখানে বিভিন্ন কোয়ালিটির পোশাক থাকে। কাপড়ের ধরনের ওপর দাম নির্ধারণ করে দেন। বিক্রি ভালোই হয়।
সোমবার (৬ ডিসেম্বর) সকালে মেঘাচ্ছন্ন ঠান্ডা আবহাওয়ার মধ্যে নগরীর ফুটপাতের গরম কাপড়ের দোকানগুলোতে ক্রেতাদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। সাধ্যের মধ্যেই ভালো মানের পোশাক কিনতে পেরে খুশি ক্রেতারা। তবে দাম নিয়ে ক্রেতা-বিক্রেতারা মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছেন।

সরেজমিনে নগরীর সাহেববাজার, রেলগেট, কোর্ট ও শিরোইল এলাকায় ঘুরে দেখা যায়, ফুটপাতে শীতের কাপড়ের পসরা সাজিয়েছেন বিক্রেতারা। কম মূল্যেই এসব কাপড় কিনছেন ক্রেতারা। দোকানে নিম্ন আয়ের মানুষের ভিড় চোখে পড়ার মতো।
ক্রেতা মাজেদুর রহমান শিশির জানান, এক সময় নির্দিষ্ট কিছু ব্যবহার্য জিনিসপত্র নির্দিষ্ট ব্যক্তিদের জন্য ছিল। বর্তমানে গরিবেরা এমন স্টাইল নিয়ে ঘুরছে। ধরার উপায় নাই কে ধনী কে গরিব। ব্লেজার পরছে, কেটস পরছে, টাই পরছে। এখন শীতের সময় আমি একটা দামি পোশাক কিনলাম যার দাম ৪৫০ টাকা। যা নতুন কিনলে দ্বিগুন টাকা লাগতো। কম দামে ভালো পোশাক পেয়ে খুশি তিনি।