নগরীতে খেলোয়াড় হত্যা মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার

আপডেট: এপ্রিল ১১, ২০২১, ৯:৩৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


নগরীতে আনসারের খেলোয়াড় মিজানুর রহমান হত্যার প্রধান আসামি মাধব সরকারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শনিবার (১০ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১ টায় রাজশাহী জেলার পুঠিয়া বাজার থেকে গ্রেফতার করেছে বোয়ালিয়া থানা পুলিশ। এরপর রোববার (১১ এপ্রিল) দুপুরে আদালতে তাকে সোপর্দ করা হয়।
বিষয়টি নিশ্চিত করেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার গোলাম রহুল কুদ্দুস। তিনি আরও জানান, ২৪ ব্যাটালিয়ন আনসার সদস্য মিজানুর রহমান মিজান গাজীপুর সফিপুরে কর্মরত ছিলেন। তিনি ৫ এপ্রিল ছুটিতে বাড়িতে আসেন। ঘটনার দিন ১০ এপ্রিল (শনিবার) সন্ধ্যার মিজানুর রহমান তার বন্ধু শ্রী মাধব সরকার, শ্রী যাদব সরকার ও মিলন কুমার সরকারসহ দুই-তিন জন মিলে হেতেমখাঁ সবজিপাড়া ওয়াসা অফিসের ভিতরে পানির ট্যাংকির নিচে ফাঁকা জায়গায় বসে আড্ডা দিচ্ছিলো। ওয়াসা ভবনের সামনে রেজা নামের এক ব্যক্তির ‘আবির বার্গার কর্ণার’ নামক অস্থায়ী দোকান ছিল। মিজান রেজাকে দোকানের লাইট বন্ধ করতে বলেন। অপরদিকে মাধব সরকার রেজাকে লাইট জ্বালাতে বলেন। বিষয়টি নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে মারামারি হয়। কিছুক্ষণ পর মাধব কুমার মিজানের বুকের বাম পাশে ছুরিকাঘাত করে গুরুতর জখম করে। ঘটনার পর মিজানুর রহামনকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ছুরিকাঘাতের ঘটনায় মিজানুর রহমানের মৃত্যুর সংবাদ জানতে পেরে মাধব সরকার পালিয়ে যায়। মৃত মিজানুর রহমানের মা মোসা. মমোতাজ বেগম বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এবং তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় মাত্র ৪ ঘণ্টার মধ্যে অভিযুক্ত আসামিকে রাজশাহী জেলার পুঠিয়া বাজার এলাকা হতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।
বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মণ বলেন, গ্রেফতারকৃত মাধব কুমারের বিরুদ্ধে ১০ দিনের রিমা- আবেদন জানিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া প্রত্যক্ষদর্শী তিনজনকে ঘটনার বিবরণ জানতে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছিল। পরে সাক্ষ্য দেয়ার জন্য তাদেরকেও আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। এসময় তারা আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। তারা বলেছেন যে, মাধবের ছুরিকাঘাতেই আনসার সদস্য মিজান নিহত হয়েছে।