নগরীতে খোলাবাজারে ৩০ টাকা কেজিতে চাল বিক্রি শুরু || ক্রেতাদের মধ্যে ইতিবাচক সাড়া

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৭, ১:১২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নগরীর তেরখাদিয়অ এলাকায় খোলাবাজারে চাল কিনছেন ক্রেতারা-সোনার দেশ

রাজশাহী খাদ্য অধিদফতর কর্তৃক ডিলারের মাধ্যমে খোলাবাজারে চাল বিক্রি শুরু করেছে। গতকাল রোববার থেকে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় সংশ্লিষ্ট ডিলারের মাধ্যমে এ চাল বিক্রি শুরু করা হয়। প্রতিটি ডিলার নির্ধারিত দিনে ১ হাজার কেজি করে চাল বরাদ্দ পেয়েছেন। এসব চাল একজন ক্রেতা ৩০ টাকা দরে ৫ কেজি করে চাল ক্রয় করতে পারবেন। রাজশাহী জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অফিস কর্তৃক ডিলাররা ২৮ টাকা ৫০ পয়সা দরে চাল ক্রয় করে তা বিক্রি শুরু করেছেন। এতে ইতিবাচক সাড়া পড়েছে মানুষের মধ্যে।
জানা যায়, ডিলার পয়েন্টে নির্ধারিত দিনে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চাল বিক্রি শুরু হয়েছে। নগরীতে ৩০ টি ওয়ার্ডের ৩০ জন ডিলার নির্ধারণ করা আছে। যাদের ১৫ জন ডিলার একদিন চাল বিক্রি করবেন এবং অপর ১৫ জন ডিলার পরেরদিন চাল বিক্রি করবেন। চাল বিক্রির সময় একজন করে খাদ্য উপপরিদর্শক ডিলার পয়েন্টে থেকে তদারকি করছেন। এছাড়া চাল ক্রয় করার সময় ক্রেতার নাম, ঠিকানা ও টিপ সই বা স্বাক্ষর রেজিস্ট্রার খাতায় লিপিবদ্ধ করা হচ্ছে।
সরকার দেশের জেলা ও মহানগরীতে ডিলারের মাধ্যমে খোলা বাজারে এ চাল বিক্রির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। তারই অংশ হিসেবে রাজশাহী মহানগরীতে গতকাল সকাল থেকে ডিলারের মাধ্যমে চাল বিক্রি শুরু হয়েছে। ক্রেতা হিসেবে যেকোন মানুষ চাল ক্রয় করতে পারবেন। একজন ডিলার নির্ধারিত দিনে সর্বোচ্চ ১ হাজার কেজি চাল বিক্রি করবেন। চাল বিক্রি শেষে সংশ্লিষ্ট খাদ্য কর্মকর্তাকে রেজিস্ট্রার খাতায় লিপিবদ্ধ ক্রেতার নাম ও ঠিকানা সঠিকভাবে দেখে স্বাক্ষর করতে হবে।
এবিষয়ে নগরীর ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের তেরখাদিয়া এলাকার ডিলার ও মেসার্স নির্জন এন্টারপ্রাইজের সত্ত্বাধিকারী আনোয়ার হোসেন বলেন, জেলা খাদ্য অফিস থেকে চাল ক্রয় করেছি। বিক্রি শুরু হওয়ার প্রথমদিন ক্রেতা কম ছিল। সেজন্য বরাদ্দকৃত সব চাল বিক্রি করতে পারে নি। তাই কিছু চাল অবশিষ্ট রয়েছে। তবে কয়েকদিন হলে ক্রেতা বাড়বেন বলে তিনি জানান।
এবিষয়ে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অফিসের প্রধান সহকারি শফিকুল ইসলাম বলেন, সরকারের নিদের্শনায় নগরীতে ৩০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি শুরু হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এক মাসের জন্য চাল বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। নগরীর প্রত্যেক ডিলারকে দেখভালের জন্য একজন করে খাদ্য উপপরিদর্শক নিযুক্ত করা আছে। সবকিছু তদারকি করবেন তারা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ