নগরীতে দুই ট্রাকের চাপায় মামা ও ভাগ্নের মর্মান্তিক মৃত্যু ।। পুঠিয়ায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

আপডেট: মে ৮, ২০১৭, ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নিহত বিশাল ও হাসিবের স্বজনদের আহাজারি-সোনার দেশ

নগরীতে দুই ট্রাকের চাপায় মামা-ভাগ্নের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এদের একজন ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার চালক এবং অপরজন সেই অটোরিকশার যাত্রী। গতকাল রোববার দুপুরে নগরীর তালাইমারি এলাকায় মর্মান্তিক এই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, নগরীর সাধুরমোড় এলাকার সোলেমান আলীর ছেলে বিশাল হোসেন (২১) ও তার ভাগ্নে হাসিবুল ইসলাম হাসিব (১৯)। হাসিব নগরীর কুঠিপাড়া এলাকার টুটুল হোসেনের ছেলে। দুর্ঘটনার সময় হাসিব অটোরিকশা চালাচ্ছিল। আর বিশাল সেই অটোরিকশায় বসে ছিলেন। এদিকে পুঠিয়ায় ট্রাকের চাপায় হিল্লোল (২৫) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন।
গতকাল দুপুরে তালাইমারি এলাকায় দুর্ঘটনার পর নিহতদের হাসপাতালে নিয়ে যান কয়েকজন যুবক। তাদের একজন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের শেষবর্ষের ছাত্র রানা হামিদ। তিনি জানান, দুপুর একটার দিকে তালাইমারী নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের মোড়ে সড়কে দুটি ট্রাক দুই দিক থেকে যাচ্ছিল। ওই সময় তালাইমারি এলাকা থেকে বাস টার্মিনালের দিকে একটি অটোরিকশা যাচ্ছিলো।
এসময় একটি দ্রুতগতির বেপরোয়া ট্রাক (যশোর ট-৭৬২) রাস্তার মাঝের ডিভাইডার অতিক্রম করে অটোরিকশাটিকে ধাক্কা মারে। একই সময়ে অপর একটি ট্রাক (কুষ্টিয়া ট- ৪৫৩) পেছন থেকে চাপা দেয় অটোরিকশাটিকে। এর ফলে অটোরিকশাটি দুটি ট্রাকের মধ্যে ঢুকে যায়। এর ফলে দুই ট্রাকের চাপায় অটোরিকশাটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এসময় দুই ট্রাকের চালক ও তাদের সহযোগী ট্রাক ফেলে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।
দুর্ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ জনতা সড়ক অবরোধ করেন। এসময় রাজশাহী বাস টার্মিনাল থেকে ছেড়ে যাওয়া এবং নগরীতে প্রবেশকারী কয়েকশ যানবাহন রাস্তার দুইপাশে আটকে যায়। ফলে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। এসময় যাত্রীরা দুর্ভোগের মধ্যে পড়েন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। একপর্যায়ে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় বিশাল ও হাসিবকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যান।
জরুরি বিভাগ থেকে তাদের হাসপাতালের আট নম্বর ওয়ার্ডে পাঠানো হয়। সেখানে ইসিজি করার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক দু’জনকেই মৃত ঘোষণা করেন। এ সময় স্বজনদের আহাজারিতে হাসপাতালে এক শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়।
নিহত হাসিবের খালু আরিফ শেখ জানান, নিহত দু’জন সম্পর্কে মামা-ভাগ্নে। ছোট বেলা থেকেই হাসিব তার নানা বাড়িতে থাকত। বছর দুয়েক আগে থেকে সে অটোরিকশা চালাতো। তার অটোরিকশাতে চড়েই মামা বিশাল যাচ্ছিলেন। পথে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহাদাত হোসেন খান জানান, বিক্ষুব্ধ জনতা রাস্তা অবরোধের চেষ্টা করলেও পুলিশ তা নিয়ন্ত্রণ করেছে। দুর্ঘটনার পর স্থানীয়রা ঘাতক ট্রাক দুটিকেও আটক করেছে। পরে ট্রাক দুটিকে থানায় আনা হয়েছে। তবে চালক দু’জন পালিয়ে গেছেন। তাদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। লাশ ময়নাতদন্ত শেষে নিকটাত্মীয়দের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এরপর রাত দশটার দিকে নগরীর টিকাপাড়া গোরস্থানে নিহত দুইজনের লাশ দাফন করা হয়। এ ঘটনায় এখনো নিহতদের নিকটাত্মীয়দের কাছ থেকে কোন অভিযোগ পাওয়া যায় নি বলে জানান ওসি।
অপরদিকে রাজশাহীর পুঠিয়ায় ট্রাকের চাপায় হিল্লোল নামের এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। গুরুতর আহত হয়েছেন মোটরসাইকেলের আরেক আরোহী। গতকাল রোববার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার গোপালহাটি তেল পাম্পের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত হিল্লোল উপজেলার বেলপুকুর-ভরুয়াপাড়া গ্রামের ইউনুস আলীর ছেলে।
এ ঘটনায় আহত হয়েছে কাঁটাখালি-হরিয়ান এলাকার আবদুর সবুর সরকারের ছেলে সোহেল রানা (২৫)। তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
পবা হাইওয়ে পুলিশ (শিবপুর ফাঁড়িী) ইনচার্জ মনির হোসেন জানান, দুপুরে ওই দু’জন মোটরসাইকেল নিয়ে নাটোরের দিকে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে নাটোর থেকে রাজশাহীগামী একটি ট্রাক গোপালহাটি তেল পাম্পের নিকট তাদের সজোরে ধাক্কা দেয়। এর ফলে ঘটনাস্থলেই একজনের মৃত্যু হয়। অপর আরোহী গুরুতর আহত হলে তাকে উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
নিহতের পরিবারের আপত্তিতে লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ