নগরীতে দোকানঘর দখলের অভিযোগ

আপডেট: এপ্রিল ১৭, ২০১৭, ১২:৩০ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহী থেকে প্রকাশিত ‘বরেন্দ্র প্রতিদিন’ দৈনিক পত্রিকার সম্পাদকের বিরুদ্ধে ভাড়া নেয়া দোকানঘর জবর দখলের অভিযোগ ওঠেছে। গতকাল রোববার বেলা ১১টায় নগরীর শিরোইল ঢাকা বাসটার্মিনাল সিটি ফুড রেস্টুরেন্টে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন অভিযোগ করেছেন গৌধুলী মার্কেটের ২৬৯ নম্বর দোকান মালিকের স্বামী আবদুল মতিন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত অভিযোগে তিনি বলেন, ২০১৫ সালের ১ এপ্রিল দোকানটি পাঁচ বছরের জন্য ভাড়া নিয়েছেন বরেন্দ্র প্রতিদিন সম্পাদক শাহীন আক্তার। শিরোইল বাস টার্মিনাল গৌধুলী মার্কেটের ২৬৯ নম্বর দোকানঘর ভাড়া নিয়েই বরেন্দ্র প্রতিদিনের অফিস করা হয়েছে। পত্রিকাটির সম্পাদক শাহীন আক্তার গত ১৮ মাস ধরে দোকান ঘরটির ভাড়া পরিশোধ করছেন না। এই ভাড়াকৃত দোকানটি আমার স্ত্রী বিউটি বেগমের সম্পত্তি।
ভাড়ার চুক্তি অনুযায়ী, প্রথম ৩ বছর দোকানঘরটির ভাড়া প্রতিমাসে ৮ হাজার টাকা। আর শেষ ২ বছরের মাসিক ভাড়া ১০ হাজার টাকা। ভাড়াটিয়া শাহীন আক্তার সর্বোচ্চ ৩ মাস ভাড়া প্রদান করতে ব্যর্থ হলে চুক্তিপত্র বাতিল বলে গণ্য হবে। কিন্তু শাহীন আক্তার গত ১৮ মাস যাবৎ কোনো ভাড়া পরিশোধ করেনি। এতে তার কাছে ১ লাখ ৪৮ হাজার টাকা পাওনা হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, গৌধুলী মার্কেট কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাসিবুল আলম রজনসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা। ভুক্তভোগি আবদুল মতিনের বাড়ি নগরীর টিকাপাড়া রামচন্দ্রপুর এলাকায়। তিনি ভূমি অফিসের একজন সার্ভেয়ার।
সংবাদ সম্মেলনে আবদুল মতিন অভিযোগ করেন, বরেন্দ্র প্রতিদিন সম্পাদক প্রথম কয়েক মাস দোকানটির ভাড়া ঠিকমতো পরিশোধ করলেও এখন করছেন না। আবার দোকানঘরটি তিনি ছাড়ছেনও না। বরং প্রশাসনের ভয় দেখিয়ে সেটি জবরদখলের চেষ্টা করছেন। তার কাছে ভাড়া চাইতে গেলেই তিনি নানা তালবাহানায় কালক্ষেপণ করছেন।
অভিযোগে আরো বলা হয়, গত ১১ মার্চ তিনি বরেন্দ্র প্রতিদিন অফিসে ভাড়া চাইতে গেলে পত্রিকাটির সম্পাদক শাহীন আক্তার তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এসময় তাকে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দেয়ারও হুমকি দেয়া হয়। এনিয়ে তিনি নগরীর বোয়ালিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়ে আসেন। কিন্তু অদৃশ্য কারণে অভিযোগের বিপরীতে পুলিশ কর্তৃপক্ষের থেকে কোন ফলাফল পাননি বলে তিনি জানান। এমনকি অভিযোগটি এখনও নথিভুক্ত করেনি পুলিশ। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, আগামি সাত দিনের মধ্যে শাহীন আক্তার দোকানের ভাড়া পরিশোধে ব্যর্থ হলে আবদুল মতিন তার দোকানে তালা ঝুলিয়ে দিতে বাধ্য হবেন।
এবিষয়ে গৌধুলী মার্কেট কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাসিবুল আলম রজন বলেন, দোকানটি উদ্ধারের জন্য ভুক্তভোগি আবদুল মতিনকে সার্বিক সহযোগিতা করা হবে বলে তিনি জানান। এবিষয়ে ‘বরেন্দ্র প্রতিদিন’ পত্রিকার সম্পাদক শাহীন আক্তারের সঙ্গে গতকাল রাতে কয়েকবার ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ