নগরীতে নৈশ প্রহরীকে ছুরিকাঘাত

আপডেট: এপ্রিল ৫, ২০১৭, ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নগরীতে চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করায় এক দোকানের নৈশ প্রহরীকে ধারালো নেপালি দিয়ে ছুরিকাঘাত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার রাত সাড়ে ১২টায় নগরীর সুলতানা বাদ এলাকার মৃত আকবর আলীর ছেলে সুমনকে ছুরিকাঘাতে অভিযোগ পাওয়া যায়। নগরীর শিরোইল এলাকার আবদুর রহমানের ছেলে রকিসহ অজ্ঞাতনামা ৩ থেকে ৪ জন তাকে গালাগালি ও এলোপাথারি কিলঘুষির পর ধারালো নেপালির আঘাতে আহত করে।
এসময় আহত সুমনের বাম হাতের বাহু ও মাজার নিচে বাম পাশে আঘাতের ফলে রক্ত বের হয়। এরপর রক্তাক্ত অবস্থায় এলাকাবাসী ও তার স্ত্রী শাহানা তাকে রামেক হাসপাতালের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন। ওইদিন দুপুরে এঘটনায় জেরে সুমনের স্ত্রী মোসা. শাহানা বোয়ালিয়া মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।
অভিযোগে বলা হয়, সুমন নগরীর সাগড়পাড়া দোশরমণ্ডল মোড়ে মতিউর রহমানের নির্মাধীন দোকানে নাইট গার্ড হিসেবে কাজ করেন। অভিযুক্তরা নির্মাধীন দোকানে কয়েকদিন থেকে চাঁদা দাবি করে আসছিলো। এরপর গত সোমবার রাত সাড়ে ১২টায় নির্মাধীন দোকানে এসে চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তাকে মারধর করে ও ধারালো নেপালী দিয়ে আঘাত রক্তাক্ত করে পালিয়ে যায়।
অভিযোগে আরো বলা হয়, অভিযুক্তরা আহত সেলিমের ডান পকেটে থাকা একটি সিমফোনি মোবাইল সেট (মূল্য অনুমানিক ২ হাজার টাকা) ও নগদ ১ হাজার ৫শ টাকা জোর পূর্বক নিয়ে যায়। এছাড়া তাকে জীবনে মেরে ফেলার হুমদি দিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।
এবিষয়ে বোয়ালিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহাদত হোসেন বলেন, এবিষয়ে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।