নগরীতে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব ১৭ জাতীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট || বিভাগীয় পর্যায়ে ছেলেমেয়েদের দুই বিভাগে চ্যাম্পিয়ন রাসিক দল

আপডেট: অক্টোবর ২০, ২০১৯, ১:০০ পূর্বাহ্ণ

ক্রীড়া প্রতিবেদক


নগরীর মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে চ্যাম্পিয়ন দলের খেলোয়াড়দের সাথে সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনসহ অতিথিবৃন্দ-সোনার দেশ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব অনূর্ধ্ব ১৭ জাতীয় ফুটবল টুর্নামেন্টের রাজশাহী বিভাগীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) দল।
গতকাল শনিবার (১৯ অক্টোবর) নগরীর মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে দুপুর ২টায় বালিকা বিভাগে রাজশাহী সিটি করপোরেশন ২-১ গোলে রাজশাহী জেলাকে হারিয়েছে। বিজয়ী দলের স্বপ্না ও একা একটি করে গোল করেন। বিজিত দলের স্বর্ণালী একটি গোল করেন। চ্যাম্পিয়ন দলের স্বপ্না সর্বোচ্চ (৬টি গোল) গোলদাতা ও সিনথিয়া শ্রেষ্ঠ খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন।
একই ভেন্যুতে এদিন বিকালে বালক বিভাগের ফাইনালে রাজশাহী সিটি করপোরেশন ২-০ গোলে হারিয়েছে সিরাজগঞ্জ জেলাকে। বিজয়ী দলের রাব্বানী ও লালন একটি করে গোল করেন। রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সজিত (৩টি গোল) সর্বোচ্চ গোলদাতা ও লালন শ্রেষ্ঠ খেলোয়াড় হয়েছেন।
ফাইনাল খেলা শেষে পুরস্কার বিতরণ করেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ফুটবলে বাংলাদেশের মেয়েরা অনেক ভালো করছে। বর্তমানে বাংলাদেশের ছেলেরাও আমাদের মধ্যে আশা জাগিয়েছে। বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্ট চালুর পর থেকে বাংলাদেশের ফুটবলে উন্নতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আমরা আশা করছি আগামী ৫/৬ বছরে আমাদের ফুটবল অনেক দূর এগিয়ে যাবে। ফুটবলে দেশের ছেলেমেয়েদের কৃতিত্ব আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পৌঁছে যাবে।
মেয়র আরো বলেন, আমি প্রথম মেয়াদে মেয়র থাকাকালে নগরীতে কাউন্সিলর গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট করেছিলাম। আবারো ২০২০ সাল থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত চারবার কাউন্সিলর গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হবে। এসব টুর্নামেন্ট চলাকালে উৎসবে মাতিয়ে থাকবে নগরী।
পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ভারপ্রাপ্ত রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার মো. জাকীর হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাজশাহী জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক ও জেলা পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ।
রাজশাহী জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহসভাপতি ও জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি মো. ডাবলু সরকার, সহসভাপতি লিয়াকত আলী, সাধারণ সম্পাদক রফিউস সামস প্যাডী ও রাসিকের ক্রীড়া ও সংস্কৃতি স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মোমিন, ১৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সংরক্ষিত আসন-৫ এর কাউন্সিলর সামসুন নাহার উপস্থিত ছিলেন।