নগরীতে বিজয়ের মাসের প্রথম দিনে পতাকা মিছিল

আপডেট: ডিসেম্বর ১, ২০২৩, ৯:১৭ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক:


নগরীতে বিজয়ের মাসের প্রথম দিনে পতাকা মিছিল করেছে। সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ ৭১ কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিজয় মাসের প্রথম দিনে বিজয়ের গৌরব গাঁথা বুকে ধারণ করে বিজয় পতাকা উৎসব-২০২৩ উদযাপন করা হয়েছে।

নগরীর সিএন্ডবি মোড় বঙ্গবন্ধু চত্বরে শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) বিকল ৪টায় জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুরু হয়, সকল শহিদদের শ্রদ্ধা নিবেদন করে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এরপর ১০০টি জতীয় পতাকা নিয়ে একটি বণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয় উৎসবের উদ্বোধন করেন মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন প্রামানিক। বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাসানের সভাপতিত্বে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান উজ্জলের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল, শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা,বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাক্তার আব্দুল মান্নান, বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট সাইদুল ইসলাম, সোনার দেশ পত্রিকার সম্পাদক আকবারুল হাসান মিল্লাত, সেভ দ্যা ন্যাচা এ্যান্ড লাইফের চেয়ারম্যান মো. মিজানূর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড রাজশাহী জেলার সভাপতি মাহমুদ হাসান ফয়সাল, বক্তারা বিজয় মাসের প্রথম দিন পহেলা ডিসেম্বর কে মুক্তিযোদ্ধা দিবস হিসাবে ঘোষণার জন্য সরকারের নিকট জোর দাবি জানান, এরপর এরপর আগামী ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবসে বাড়ি বাড়ি পতাকা উত্তোলনের জন্য নেতা কর্মীদের মাঝে জাতীয় পতাকা বিতরণ করা হয়।

নগরীতে বিজয়ের মাসের প্রথম দিনে পতাকা মিছিল করেছে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির রাজশাহী জেলা ও মহানগর শাখা।
শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) বিকাল ৪ টায় নগরীর লক্ষীপুর মোড়ে এই পতাকা মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

পতাকা মিছিলে উপস্থিত ছিলেন, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি কেন্দ্রীয় সহ-সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান, মহানগরের সভাপতি আব্দুল লতিফ চঞ্চল, সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী তামিম শিরাজী, জেলার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান আলী বরজাহান, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জোসনা আরা, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি ও নির্মূল কমিটির সদস্য কল্পনা রায়, সাধারণ সম্পাদক অঞ্জনা সরকার, রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শফিকুজ্জামান শফিক, জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক সুভাষচন্দ্র হেমব্রম, মহানগর নির্মূল কমিটির দপ্তর সম্পাদক ওয়ালিউর শেখ, মহানগর নির্মূল কমিটির সদস্য এপিপি শামিম আক্তার হৃদয়, রাজশাহী থিয়েটারের সভাপতি নিতাই সরকার, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াসিন আলী মোল্লা, নারী ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক সাইমা খাতুন বিথী, যুব ইউনিটের সভাপতির মহিউদ্দিন মিঠু, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ, স্টুডেন্ট ফ্রন্ট্রের সভাপতি ইখতিয়ার প্রামাণিক, সাধারণ সম্পাদক আরাফাত হোসেন প্রমুখ।

একাত্তরে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় নেতা সহ-সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের অঙ্গীকার ও চেতনা বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে অসাম্প্রদায়িক, শোষণ-বৈষম্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে জঙ্গিবাদ-দুর্নীতি প্রতিরোধ ও সর্বস্তরে জবাদদিহিতা নিশ্চিত করার দাবি জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ