নগরীতে বিশ্ব খাদ্য দিবস উদযাপিত ‘বঙ্গবন্ধু খাদ্য উৎপাদন ও পুষ্টিকে সর্বদাই গুরুত্ব দিয়েছেন’: জেলা প্রশাসক

আপডেট: অক্টোবর ১৬, ২০২১, ২:৩১ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহী জেলা প্রশাসন, কৃষি স¤প্রসারণ ও খাদ্য অধিদফতরের আয়োজনে বিশ্ব খাদ্য দিবস উদযাপিত হয়। শনিবার (১৬ অক্টোবর) সকাল ১১ টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল।
এবারের প্রতিপাদ্য ছিল, ‘আমাদের কর্মই আমাদের ভবিষ্যৎ ভালো উৎপাদনে ভালো পুষ্টি আর ভালো পরিবেশেই উন্নত জীবন।’
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেন, বিশ্ব খাদ্য দিবস প্রথম উদযাপন শুরু হয় ১৯৮১ সালের ১৬ অক্টোবর। ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান খাদ্য উৎপাদন ও পুষ্টিকে সর্বদাই গুরুত্ব দিয়েছেন’। এই আদর্শকে ধারণ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কৃষির উন্নয়ন ও কৃষকের কল্যাণের কথা চিন্তা করে রূপকল্প ২০৪১ এর আলোকে জাতীয় কৃষি নীতি, নিরাপদ খাদ্য আইন, টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট, ডেল্টা প্ল্যান সহ উল্লেখযোগ্য কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। খাদ্য উৎপাদন ও পুষ্টির ক্ষেত্রে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিচক্ষণ নেতৃত্বে বাংলাদেশের সা¤প্রতিক যে অগ্রগতি হয়েছে তা এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা ও ভিশন ২০৪১- এর অভীষ্ট অর্জনে সহায়ক হবে বলে জানান জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল।

জেলা প্রশাসক আরো জানান, খাদ্য এদেশের নাগরিকদের মৌলিক অধিকার হলেও দিনে দিনে রাসায়নিক দ্রব্যের ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়ায় আলুসহ বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী বিদেশে রপ্তানি করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই অপুষ্টি রোধে খাদ্যের পুষ্টি ও গুনগতমান বজায় রেখে খাদ্য প্রক্রিয়াজাত করা জরুরি। কৃষিজাত পণ্য থেকে মানসম্পন্ন খাদ্য উৎপাদন ও সংরক্ষণের মাধ্যমে বিপুল জনশক্তির খাদ্য চাহিদা পূরণ করা সম্ভব। সেই লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কৃষি উন্নয়নে বাস্তবমুখী বিভিন্ন পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন।
রাজশাহী কৃষি স¤প্রসারণের উপপরিচালক কে.জে.এম আব্দুল আউয়াল এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) সাবিহা সুলতানা, কৃষি স¤প্রসারণ অধিদফতরের জেলা প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা মোছা. উম্মে ছালমা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. ওমর ফারুক। অনুষ্ঠানের শুরুতেই কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন পবা উপসহকারী কৃষি অফিসার আলহাজ্ব রবিউল ইসলাম।