নগরীতে ভুয়া কাগজপত্রে জমি দখলের চেষ্টা || সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

আপডেট: ডিসেম্বর ৮, ২০১৬, ১২:১৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :



নগরির নিউমার্কেট ইসলামী ব্যাংকের পিছনে বোয়ালিয়া মৌজার ৪৬৫৩ নম্বর দাগের ০.০৮৮১ একর জমির মালিকানা নিয়ে উভয়পক্ষের বিরোধ চরমে পৌচেছে। বৈধ কাগজপত্র থাকা জমির ক্রয়কৃত প্রকৃত মালিককে নানাভাবে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করে জমির অবৈধ মালিকানা দাবি করছেন জনৈক জসিম উদ্দিন। গতকাল বুধবার দুপুরে রাজশাহী মেট্রোপলিটন প্রেসক্লাবে এক সাংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন জমির প্রকৃত মালিক রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মীর্জা শাহেন শাহ আলী শোভা। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করে শোনান, মীর্জা শাহেনশাহ আলী শোভার পক্ষে তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সেকেন্দার আলী।
লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, নগরীর সাগরপাড়া নিবাসী শাদীন মোহাম্মদ মাহবুবের নগরীর নিউমার্কেট ইসলামী ব্যাংকের পিছনে বোয়ালিয়া মৌজার খতিয়ান নম্বর- ১৮৯০, দাগ নম্বর-৪৬৫৩ জমির পরিমান- ০.০৮৮১ একর জমির পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া নিষ্কন্টক জমিটি মীর্জা শাহেনশাহ আলী শোভা বৈধভাবে ক্রয় করে। জমিটির সি.এস, এস.এ, আর.এস.এস রেকর্ডসহ খাজনা-খারিজ অদ্যবধি পরিশেধিত রয়েছে। কিন্তু রাজশাহী চেম্বার অব কর্মাসের সাবেক প্রশাসক জিয়াউল হক টুকু হত্যা মামলার অন্যতম আসামি ভূমিদস্যু জসিম উদ্দিন, তার ভাই সেলিম ও মিঠুসহ তাদের গুন্ডাবাহিনী অদৃশ্য শক্তির প্রভাবে জাল কাগজপত্রসহ আমাকে আমার ক্রয়কৃত জমি দখলে বাধা প্রদান করে আসছে।
এবিষয়ে জমির প্রকৃত মালিক মীর্জা শাহেনশাহ আলী শোভা আদালতে একটি মামলা দায়েরসহ মহানগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি দায়ের করেন। বিষয়টি নিয়ে বোয়ালিয়া মডেল থানায় উভয় পক্ষকে নিয়ে মিমাংসায় বসে কিন্তু মিমাংসায় ভূমিদস্যু জসিম উদ্দিন জমির সঠিক কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। এসময় থানাতেই জসিম উদ্দিন বাহিনী আমার উপর চড়াও হয় ও প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে বলে অভিযোগ করেন মীর্জা শাহেনশাহ আলী শোভা।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, জমি বিক্রয়দাতা শাদীন মোহাম্মদ মাহবুব, মীর্জা শাহেনশাহ আলী শোভার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সেকেন্দার আলী, মারুফ সরকার হোসেন ও রোকুনুজ্জামান।