নগরীতে যুবককে কুপিয়ে আহত

আপডেট: এপ্রিল ১৩, ২০১৭, ১:০০ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


আহত জিয়ারুল-সোনার দেশ

নগরীতে কবুতর ধরা নিয়ে পূর্বশত্রুতার জেরে হাসুয়া ও ছুরি দিয়ে এক যুবককে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাত ১১টায় নগরীর খরবোনা এলাকার জিয়ারুলকে (২৬) কুপিয়ে আহত করা হয়। ঘটনার সঙ্গে জড়িতরা হলো ওই এলাকার মো. হালিমের ছেলে মো. আলী, নজুর ছেলে রনি, মামুন ও মারুফসহ তার দলবল। এরপর তাকে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করার পর মাথায় চৌদ্দটি সেলাই করা হয়। গতকার বুধবার এঘটনায় বোয়ালিয়া মডেল থানায় আহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়ে করা হয়েছে।
জানা যায়, ঘটনার দিন রাতে আহতের নিজ বাড়িতে গিয়ে হামলা চালায় অভিযক্তরা। তাদের হামলায় জিয়ারুলের মাথা ফেটে যায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হয়। স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, এ ঘটনার কয়েক মাস আগে কবুতর ধরা নিয়ে জিয়ারুল ও মো. আলির মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। এঘটনার জেরে গত মঙ্গলবার রাতে মো. আলীর ও তার বন্ধুরা হাসুয়া ও ছুরি দিয়ে তাকে কুপিয়ে আহত করে। এঘটনায় তার মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থান জখম হয়।
আহতের ভাই আনারুল জানান, ঘটনার পর হামলাকারীরা বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করার চেষ্টা করে। আহত অবস্থায় জিয়ারুলকে আত্মীয়-স্বজন ও এলাকার স্থানীয়রা রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করেন। গতকাল বুধবার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ওয়ার্ডের কতব্যরত চিকিৎসকরা সকালে রামেক হাসপাতালের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে স্থান্তার করা হয়।
এঘটনার বিষয়ে বোয়ালিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহাদত হোসেন বলেন, এঘটনায় গতকাল বুধবার থানায় মামলা হয়েছে। নগরীর খোরবোনা এলাকার জিয়ারুল নামের এক যুবক আহত অবস্থায় রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এঘটনার সঙ্গে জড়িতদের পুলিশ গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।
তিনি আরো বলেন, ওই এলাকা ঘনবসতিপূর্ণ এবং এলাকার পাশদিয়ে পদ্মা নদী থাকায় আসামীরা চড়ের মধ্যে পালিয়ে যাচ্ছে। তারপরেও আমি নিজে ওই এলাকায় তদন্তে গিয়েছি। পুলিশ তৎপর রয়েছে আসামীদের গ্রেফতারের জন্য।