নগরীতে রাস্তা দখল করে দোকান নির্মাণ

আপডেট: মার্চ ২৪, ২০১৭, ১২:১৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নগরীল বেলদার পাড়ায় রাস্তার অংশ দখল করে নির্মিত হচ্ছে দোকানঘর- সোনার দেশ

নগরীর ২০ নম্বর ওয়ার্ডের বেলদারপাড়া এলাকায় সরকারি রাস্তা দখল করে দোকানঘর নির্মাণ করছেন এক প্রভাবশালী। এর ফলে ওই সড়কের যাতায়াতকারী বাসিন্দারা পড়েছেন বিপাকে। যে রাস্তায় রিকশা-ভ্যান ও ছোট গাড়ি চলাচল করছিলো এখন অবৈধভাবে রাস্তার মুখে পাকা দোকানঘর নির্মাণ করায় ওই রাস্তাটি বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকাবাসির মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।
স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর, থানা পুলিশ ও খোদ সিটি করপোরেশেনের মেয়রের কাছে এলাকাবাসী আবেদন করেও কোনো ফল পাচ্ছেন না। ওই মহল্লায় বসবাসকারী অর্ধ শতাধিক ব্যক্তি রাস্তার মুখে দোকানঘর নির্মাণ বন্ধের জন্য সিটি করপোরেশনে আবেদন করেও কোনো লাভ হয়নি। ফলে স্থানীয়ভাবে উত্তেজনা বিরাজ করছে ওই এলাকায়।
এলাকাবাসী অভিযোগে উল্লেখ করেন, নগরীর ২০ নম্বর ওয়ার্ডের বেলদারপাড়ায় রাসিকের হেরিংবন্ড রাস্তার ইট তুলে স্থানীয় প্রভাবশালী আব্দুল মান্নান লাল ও তার সহযোগীরা জোর করে পাকা দোকানঘর নির্মাণ করছেন। ফলে ওই রাস্তা দিয়ে এখন রিকশা-ভ্যান দূরের কথা মানুষের চলাচল প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। ওই রাস্তা দিয়ে মহল্লার অন্তত শতাধিক পরিবার চলাচল করেন। অভিযোগে উল্লেখ করেন, দখলদাররা এলাকার প্রভাবশালী, মাস্তান ও চিহ্নিত চাঁদাবাজ। তাদের ভয়ে সারাক্ষণ এলাকাবাসী তটস্থ থাকেন। ফলে স্থানীয়রা তাদের স্বেচ্ছাচারিতা ও চাঁদাবাজির প্রতিবাদ করার সাহস পাচ্ছেন না।
স্থানীয় বাসিন্দা মোহা. কিসমত আলী জানান, এ বিষয়ে সম্প্রতি তিনি রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়রের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে রাসিকের দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুস্তাক আহমেদকে রতনকে দায়িত্ব দেন। তিনি তদন্ত করে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য সুপারিশ করেন।
কিসমত আলী নগরীর বোয়ালিয়া থানাতেও প্রতিকার চেয়ে জিডি করেছেন। তবে এখন পর্যন্ত থানা পুলিশ ও সিটি করপেরেশন কোনো কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে এ অভিযোগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও বোয়ালিয়া থানার এসআই মো. দুলাল ফোন রিসিভ করেন নি। তবে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুস্তাক হোসেন রতন বলেন, বিষয়টি তিনি তদন্ত করে রাস্তা দখলের প্রমাণ পেয়েছেন। তিনি লিখিতভাবে বিষয়টি দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়রকে অবহিত করেছেন।
দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র নিযাম উল আযীম নিযাম জানান, বিষয়টি তার নজরে রয়েছে। খুব শিগগিরই অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে রাস্তাটি জনগণের চলাচলের জন্য মুক্ত করে দেয়া হবে।