নগরীতে শিশুদের এ ক্যাপসুল খাওয়ালেন সিটি মেয়র লিটন

আপডেট: জানুয়ারি ১২, ২০২০, ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নগরীতে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানোর কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন-সোনার দেশ

রাজশাহী নগরীতে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে নগরীর ১৩নম্বর ওয়ার্ডের দড়িখরবোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন, সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। এ সময় মেয়র শিশুদের এ ক্যাপসুল খাওয়ান।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা ও স্বাস্থ্যরক্ষা ব্যবস্থা স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ৬নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূরুজ্জামান, ১৩নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মমিন, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা.এফএএম আঞ্জুমান আরা বেগম প্রমুখ।
এদিকে রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু নিজ ওয়ার্ড কার্যালয়ে শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ান। একইভাবে প্রতিটি ওয়ার্ডে কাউন্সিলরদের নেতৃত্বে নিজ নিজ ওয়ার্ডে এ কার্যক্রম পরিচালিত হয়। প্রতিটি কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত এবং ওয়ার্ড কার্যালয়ে সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এ কার্যক্রম পরিচালিত হয়।
রাজশাহী নগরীতে স্থায়ী কেন্দ্র ৩৮৪টি ও ৪১টি ভ্রাম্যমান কেন্দ্রে ৬-১১ মাস বয়সী ৭ হাজার ৯শত ৫০ জন শিশু ও ১২-৫৯ মাস বয়সী ৫৪ হাজার ২ শত ১৮ জন শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে রাসিক। এ কাজে ৭শ ৬৮ জন স্বেচ্ছাসেবী নিয়োজিত ছিল। ৬-১১ মাস বয়সী সকল শিশুকে ১টি নীল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল ও ১২-৫৯ মাস বয়সী সকল শিশুকে ১টি লাল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়।
উল্লেখ্য, ভিটামিন ‘এ’ অপুষ্টিজনিত অন্ধত্ব থেকে শিশুদের রক্ষা করে, শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। বাংলাদেশে ভিটামিন এ এর অভাবজনিত সমস্যা প্রতিরোধে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে জাতীয় পুষ্টি সেবা, জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠান বছরে দুইবার জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন করে থাকে। শিশুর বয়স ৬ মাস পূর্ণ হলে মায়ের দুধের পাশাপাশি পরিমাণ মত ঘরে তৈরি সুষম খাবার খাওয়াতে হবে। মা ও শিশুর পুষ্টির জন্য গর্ভবর্তী ও প্রসূতি মায়েদের স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি পরিমাণে ভিটামিন এ সমৃদ্ধ প্রাণিজ খাবার মাছ, মাংস ডিম, দুধ, কলিজা ও উদ্ভিজ খাবার- হলুদ ফলমূল ও রঙিন শাক সবজি খেতে দিন। এছাড়াও পরিবারের রান্নায় ভিটামিন ‘ও’ সমৃদ্ধ ভোজ্য তেল ব্যবহারের বিষয়ে ক্যাম্পেইন দিবসে অভিভাবকগণকে পুষ্টিবার্তাসমূহ জানানোই ক্যাম্পেইরে মূল উদ্দেশ্য।
৫ নম্বর ওয়ার্ড : শনিবার সকাল ৮টায় রাসিকের ৫নম্বর ওয়ার্ড কার্যালয়ের সামনে জাতীয় ভিটামিন-‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়। ক্যাম্পেনের উদ্বোধন করেন ৫নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান কামরু। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এ এফ এম আঞ্জুমান আরা বানু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ ও কোর্ট কলেজ অধ্যক্ষ পারভেজ আলম। এ সময় উপস্থিত অভিভাবকদের উদ্দ্যেশে অতিথিরা শীতে বাচ্চাদের যত্ন ও রোগবালায়ে প্রাথমিক চিকিৎসা বিষয়ে সচেতন থাকতে পরামর্শ দেন। ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ওয়ার্ড সচিব সালে আবু উমাইয়া ও ৫ নং ওয়ার্ড স্বাস্থ্য সহকারী (টিম লিডার) তারেক হাসান। এ সময় প্রদান অতিথির বক্তব্যে কাউন্সিলর কামরুজ্জামান কামরু বলেন একটি সুস্থ শিশু একটি সুস্থ দেশ ও জাতি গড়তে পারে। এ কারনে বাচ্চাদের ক্ষেত্রে অভিভাবকদের সচেতন থাকতে বলেন। এসময় তিনি বলেন, বাচ্চাদের সেবায় ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয় সর্বদা প্রস্তুত থাকে। শনিবার ওয়ার্ডের প্রায় ২৪০০ শিশুকে ভিটামিন-এ খাওয়ানো হয়।