নগরীতে ১০টি সেকেন্ডারী ট্রান্সফার স্টেশন নির্মাণ করা হবে

আপডেট: June 3, 2020, 12:04 am

নিজস্ব প্রতিবেদক:


নগরভবনের সরিৎ দত্ত গুপ্ত সভাকক্ষে আয়োজিত রাসিকের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভায় বক্তব্য রাখেন সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন-সোনার দেশ

নগরীতে ১০টি সেকেন্ডারী ট্রান্সফার স্টেশন নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন, সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে নগরভবনের সরিৎ দত্ত গুপ্ত সভাকক্ষে আয়োজিত রাসিকের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
এ সময় মেয়র আরো বলেন, পরিচ্ছন্নতায় দেশের অনন্য সিটিতে পরিণত হয়েছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন। আর এ সাফল্যের দাবিদার মহানগরবাসীসহ সংশ্লিষ্ট সকলে। আমাদের এ সাফল্য ধরে রাখতে হবে। রাজশাহী মহানগরীর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম উন্নয়নে নতুন প্রকল্প গ্রহণ করা হবে।
মেয়র বলেন, নগরীর সকল ড্রেনসমূহের কাদামাটি অপসারণসহ পরিচ্ছন্নতায় বিশেষ কার্যক্রম গ্রহণের ফলে আগামী বর্ষা মৌসুমে নগরীতে জলাবদ্ধতা আর হবে না আশা করছি। গত মেয়াদে দায়িত্ব পালনকালে নগরীর সকল ড্রেনসমূহের কাদামাটি অপসারণ কার্যক্রম করা হয়েছিল যার সুফল রাজশাহীবাসী ভোগ করেছিল। এবারও বিশেষ এ কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতির পাশাপাশি সারাদেশে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ায় নগরীতে ইতোমধ্যে মশক নিয়ন্ত্রণে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম গতিশীল করতে বড় ড্রেনসমুহের পাশে রাস্তা নির্মাণ করা হবে। আগামীতে বড় কালভার্টগুলোর মুখে জাল লাগানোর পরিকল্পনা রয়েছে। নগরীর ড্রেনের পানি প্রবাহ গতিশীল করতে উত্তরে কাঁচাড্রেনসমূহের সংস্কারের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।
বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি রাসিকের প্যানেল মেয়র ১ ও ১২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, কমিটির সদস্য ১৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মোমিন, ১৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম। সভায় কমিটির সদস্য ৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম পিন্টু, ১৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ