নগরীতে ৩ ঘন্টা দেরিতে টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু

আপডেট: September 13, 2020, 10:27 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক:


নগরীতে প্রথমদিনে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) পণ্য বিক্রিতে তিন ঘন্টা দেড়ি। ১০ টা থেকে টিসিবির পণ্য বিক্রির কথা থাকলেও দুপুর ১ টার দিকে শুরু হয়। নগরীর ভূবন মোহনপার্কে দুপুর একটার দিকে টিসিবির পণ্যবাহী ট্রাক আছে। এছাড়া সকাল থেকেই নি¤œ আয়ের মানুষেরা লাইনে দাঁড়ায়। তিন ঘন্টা দেড়িতে টিসিবির গাড়ি আসায় ভোগান্তির শিকার হয়েছেন অনেকেই।
মোসা. রাসু বেগম নামের এক নারী জানান, সকাল ১১টা থেকে বসে আছি। গাড়ি আসবে আসবে করে একটার আযান দিলো তখন গাড়ি আসলো। তার পরে জিনিসপত্র গুছিয়ে তারা বিক্রি শুরু করে।
টিসিবি রাজশাহীর অফিস প্রধান রবিউল মরশেদ জানায়, ব্যাংকে টাকা জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে দেড়ি হয়েছে। এছাড়া এখানে রাজশাহীর জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে টিসিবির পণ্য নিতে ডিলাররা আসেন। তাদের দেওয়ার পরে নগরীর ডিলারগুলোকে দেওয়া হয়। এর কারণে দেড়ি হচ্ছে।
গতকাল রোববার প্রথম দিন ছিলো টিসিবির পণ্য বিক্রির। এদিন নগরের কোর্ট স্টেশন, তালাইমারী, নওদাপাড়া, চিড়িয়াখানার সামনে, সাহেববাজার ভুবন মহোন পার্কে টিসিবির পণ্য বিক্রি করা হয়। ট্রাকে প্রতিকেজি চিনি ৫০ টাকা, মসুরের ডাল ৫০ টাকা, সোয়াবিন তেল ৮০ টাকা, পেঁয়াজ ৩০ কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
সংশ্লিষ্টরা জানায়, বন্যা ও করোনার কারণে টিসিবির পণ্য দিচ্ছে সরকার। বন্যা ও করোনা পরিস্থিতিতে সহায়তায় চিনি, সয়াবিন তেল, মসুর ডাল, পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে। চলবে ১০ অক্টোবর পর্যন্ত।
টিসিবির রাজশাহী কার্যালয়ের গুদাম কর্তকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, প্রতিটি ডিলার পাবেন ৬০০ কেজি চিনি, তেল ৮০০ লিটার, ডাল ৫০০ কেজি, পেঁয়াজ ৩০০ কেজি। একজন ক্রেতা সবগুলো জিনিস ২ কেজি করে কিনতে পারবেন। শুধু তেল ৫ লিটার নিতে পারবেন।