নগরীর অবৈধ স্থাপনা, নির্মাণ সামগ্রী, ব্যানার ও পোস্টার অপসারণ করার নির্দেশ রাসিকের

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২২, ১০:০৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


মুজিবশতবর্ষে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বাংলাদেশ ভারত মৈত্রীর ৫০ বছর পূর্তিতে ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশের আয়োজনে ২৫,২৬ ও ২৭ ফেব্রুয়ারি রাজশাহীতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া কালচারাল মিট’, রাজশাহী-২০২২।

এ উপলক্ষে বুধবার সকাল সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত নগর ভবনের সরিৎ দত্ত গুপ্ত সভাকক্ষে পরিচ্ছন্ন স্থায়ী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু।

সভাপতির বক্তব্যে প্যানেল মেয়র বলেন, রাজশাহী মহানগরীর পরিচ্ছন্নতার সুনাম দেশের গন্ডি পেরিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গণে ছড়িয়ে পড়েছে। আগামী ২৫-২৮ ফেব্রুয়ারি রাজশাহীতে ‘বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া কালচারাল মিট’ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে দেশি-বিদেশি আগন্তুক অতিথিদের কাছে রাজশাহীকে উপস্থাপন করতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন।

আয়োজন সফল করতে ইতোমধ্যে সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের আমন্ত্রণে বিভাগীয় পর্যায়ের সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের নির্দেশনায় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের পরিষদসহ সকল পযায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডের রাস্তার কাজ সংস্কার, আলোকায়ন ব্যবস্থা জোরদারকরণ, রাস্তা, ফুটপাতে অবৈধ স্থাপনা, নির্মাণ সামগ্রী, পোস্টার ব্যানার অপসারণ ইত্যাদি বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করেছেন। ওয়ার্ড পর্যায়ে এ সকল কার্যক্রম জোরদারকরণে ওয়ার্ড সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের আন্তরিকভাবে দায়িত্ব পালনের আহবান জানান তিনি।

সভায় মশক নিয়ন্ত্রণে ফগার কার্যক্রম পরিচালনা ও আসন্ন বর্ষা মৌসুমের পূর্বে ড্রেনের কাদামাটি অপসারণ করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। তিনি আরও বলেন, রাজশাহীতে ২৫-২৮ ফেব্রুয়ারি ‘বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া কালচারাল মিট’ আন্তর্জাতিক মানের এ অনুষ্ঠান সফল করতে সকলকে আন্তরিক হতে হবে।

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অর্জিত সুনাম ধরে রাখতে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। রাজশাহীকে অনন্য মাত্রায় তুলে ধরতে সংশ্লিষ্ট সকলকে প্রত্যেকের নিজ নিজ অবস্থান থেকে দায়িত্ব পালন করতে হবে। সকলের সহযোগিতায় এ বাস্তবায়ন সম্ভব বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

সভায় বক্তব্য দেন কমিটির সদস্য ৩০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম পিন্টু, ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মোঃ মামুন ডলার। সভায় পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মনিটরিং মোঃ সাজ্জাদ আলী, সকল ওয়ার্ডের সচিবগণসহ পরিচ্ছন্ন সুপারভাইজারগণ উপস্থিত ছিলেন।