নগর আ’লীগের সম্মেলন ১ মার্চ || সভাপতি ও সম্পাদকের পদ পেতে নেতাদের দৌড়ঝাঁপ

আপডেট: February 17, 2020, 12:22 am

নিজস্ব প্রতিবেদক


দীর্ঘ পাঁচ বছর পর আগামি ১ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন। সম্মেলন উপলক্ষে এরইমধ্যে শুরু হয়ে গেছে তোড়জোড়। পদ প্রত্যাশিদের বেশিরভাগ নেতা অবস্থান করছেন ঢাকায়। পদ পেতে চলছে দৌড়ঝাঁপ। নিজ নিজ শক্তি ও বলয়ে চলছে লবিং-গ্রুপিং।
সভাপতি পদে আলোচনায় এবারো শীর্ষে রয়েছেন বর্তমান সভাপতি ও সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। তিনি ছাড়াও এবার সভাপতি পদ প্রত্যাশিদের তালিকায় নাম রয়েছে জেলা আওয়ামী লীগের সদ্য বিদায়ী সভাপতি ও রাজশাহী-১ আসনের সাংসদ ওমর ফারুক চৌধুরী। এছাড়াও সভাপতি পদ পেতে চান নগর আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান বজলুর রহমান। তবে এদের মধ্যে নগর আওয়ামী লীগ সভাপতি পদে সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের বিকল্প দেখছেন না তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।
নগর আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্রমতে, কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে বসে সম্মেলনের দিনক্ষণ চূড়ান্ত করে শনিবার ঢাকায় গেছেন নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। আর ঢাকায় অবস্থান করে সভাপতি পদ পেতে হাইকমান্ডে দৌড়ঝাঁপ করছেন নগর আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বজলুর রহমান। চালাচ্ছেন তদ্বির ও লবিং। এছাড়া সভাপতি প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়ে কেন্দ্রে তদ্বির চালাচ্ছেন রাজশাহী-১ আসনের সাংসদ ও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদ্য বিদায়ী সভাপতি ওমর ফারুক চৌধুরী।
অপরদিকে সাধারণ সম্পাদক পদটি নিয়েও বর্তমানে চলছে নানান জল্পনা-কল্পনা। দলের ভেতরে ও বাইরে গুরুত্বপূর্ণ এই সাংগঠনিক পদটি নিয়ে ব্যাপক তোড়জোড় শুরু হয়েছে। এই তালিকায় রয়েছেন প্রায় ডজন খানেক নেতা। এরা হলেন, বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি নওশের আলী, সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হুদা রানা ও মোস্তাক হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টু ও অ্যাডভোকেট আসলাম সরকার।
এছাড়াও সাধারণ সম্পাদক হতে চান রাবি ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আহসানুল হক পিন্টু, রাজশাহী কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান বাবু, নগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শফিকুজ্জামান শফিক, প্যানেল মেয়র-১ সরিফুল ইসলাম বাবু।
তবে নতুন করে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন বর্তমান কমিটির সহসভাপতি ও সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা এবং সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জুবায়ের রুবন।
সিটি মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, আগামি পয়লা মার্চ নগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর শুভ উদ্বোধনও একই মাসে হবে। দুইটি বিষয়কে মাথায় রেখেই এই নগরীকে সাজিয়ে তোলা হবে। দেখার মতো একটি সম্মেলন হবে। শান্তির শহর রাজশাহীতে শান্তি ও সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে সম্মেলন এবং পরবর্তীতে মুজিববর্ষ উদযাাপন হবে বলে আশা করছি।’
এর আগে গত ২০১৪ সালের ২৫ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয় নগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়। ওই কাউন্সিলে খায়রুজ্জামান লিটন সভাপতি ও ডাবলু সরকার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। বর্তমানে মহানগর আওয়ামী লীগের পাঁচটি সাংগঠনিক থানা ও ৩৭টি ওয়ার্ড কমিটি রয়েছে। ওয়ার্ড ও থানা কমিটিগুলো নতুনভাবে না হওয়ায় ২০১৪ সালের করা ৩৯৫ জন কাউন্সিলর দিয়েই এবারেও মহানগর কমিটির সম্মেলন হবে।