নজিপুর বাসস্ট্যান্ডে ট্রাফিক পুলিশ নিয়োগের দাবি এলাকাবাসীর

আপডেট: ডিসেম্বর ২৩, ২০১৬, ১২:১২ পূর্বাহ্ণ

পতœীতলা প্রতিনিধি



নওগাঁর পতœীতলা উপজেলা সদর নজিপুর পৌর শহরের প্রাণ কেন্দ্র চৌরাস্তার মোড় বাসস্ট্যান্ডে ট্রাফিক পুলিশ মোতায়েনের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।
জানা যায়, ট্রাফিক পুলিশ না থাকায় চৌরাস্তা সংলগ্ন নজিপুর বাসস্ট্যান্ডে আইন অমান্য করে চালকরা বেপরোয়া ভাবে গাড়ি চালায়। এতে যানজট ও যে কোন মুহূর্তে ঘটতে পারে প্রাণহানির মতো বড় ধরনের দুর্ঘটনা। চার বছর আগে নজিপুর বাসস্ট্যান্ডে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণে ট্রাফিক পুলিশ নিয়োজিত ছিল। সে সময় ওই এলাকায় যানজট কম ছিল। নজিপুর বাসস্ট্যান্ডে প্রায় আড়াই হাজার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান রয়েছে। ইতোপূর্বে নজিপুর বাসস্ট্যান্ড চৌরাস্তা মোড়ে দুই দফা ট্রাফিক পুলিশ নিয়োগ দেয়া হলেও পরে তা প্রত্যাহার করে নেয়া হয়। এতে করে বর্তমানে নজিপুর বাসস্ট্যান্ডে ট্রাফিক পুলিশ দায়িত্বে না থাকায় প্রতিনিয়ত যানজটসহ ঘটছে ছোট খাটো দুর্ঘটনা।
রাজধানী ঢাকা থেকে সরাসরি সংযোগ সড়ক হওয়ায় জেলা সদরের দ্বিতীয় বৃহত্তর যানজটপূর্ণ ও ব্যস্ততম শহর হিসেবে পরিচিত নজিপুর বাসস্ট্যান্ড চৌরাস্তা। এই নজিপুর চৌরাস্তা বাসস্ট্যান্ড দিয়ে জেলার সাপাহার, পোরশা, মহাদেবপুর, বদলগাছি ও ধামইরহাট যায় সব ধরনের যানবাহন। এছাড়াও নজিপুর বাসস্ট্যান্ড হয়ে রাজধানী ঢাকা, বগুড়া ও রাজশাহী থেকে জয়পুরহাট, হিলি, বিরামপুর, দিনাজপুর, রংপুর বিভাগসহ উত্তরাঞ্চলের যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী ট্রাক যাতায়ত করে।
এ বিষয়ে নজিপুর বাসস্ট্যান্ড বণিক কমিটির সভাপতি মো. শহিদুল আলম বেন্টু বলেন, নওগাঁ জেলার দ্বিতীয় বৃহত্তর ব্যস্ততম শহর নজিপুর বাসস্ট্যান্ড চৌরাস্তা মোড়ে আইনশৃঙ্খলা স্বভাবিক রাখতে ট্রাফিক পুলিশ নিয়োগ দেয়া জরুরি ও সময়ের দাবি।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও বীরমুক্তিযোদ্ধা বাবু নির্মল চন্দ্র ঘোষ বলেন, এক সভায় জেলা পুলিশ সুপার এই বিষয়ে প্রতিশ্রতি দিয়েছেন। তবে এর বেতন ভাতা নজিপুর পৌরসভাকে বহন করতে হবে।
পতœীতলা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আজিম উদ্দীন বলেন, এ বিষয়ে এসপি অফিসে কথা উঠেছিল। ট্রাফিক পুলিশ নিয়োগের জন্য ট্রাফিক বক্স লাগবে। আগামী ৬ মাসের মধ্যে এটি বাস্তবায়ন হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ