নতুন জঙ্গি সংগঠন ‘শাহাদাত’

আপডেট: মে ২৫, ২০২৪, ২:০৬ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক :


নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনের ৩ জনকে গ্রেফতার করার পর র‌্যাব বলছে, এরা আনসার আল ইসলামের আড়ালে ‘শাহাদাত’ নামের নতুন সংগঠন গড়ে কার্যক্রম চালাচ্ছিল।
রাজধানীর গুলিস্তান ও সাইনবোর্ড এলাকা থেকে শুক্রবার (২৪ মে) এই ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

ধৃতরা হলো- মো. ইসমাইল হোসেন (২৫), মো. জিহাদ হোসেন ওরফে হুজাইফা (২৪) এবং মো. আমিনুল ইসলাম (২৫)।
শনিবার (২৫ মে) র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার আরাফাত ইসলাম এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এদের মধ্যে ইসমাইল হোসেন রিক্রুটিং শাখার প্রধান; অন্য দু’জন আঞ্চলিক প্রশিক্ষক।

কারওয়ান বাজারের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কমান্ডার আরাফাত বলেন, র‌্যাবসহ অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিয়মিত অভিযানের কারণে আনসার আল ইসলামের কার্যক্রম প্রায় স্তিমিত হয়ে পড়েছে।

“তারা কৌশল হিসেবে আনসার আল ইসলামের আড়ালে ‘শাহাদাত’ নামে নতুন একটি জঙ্গি সংগঠন তৈরি করে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।”
“তারা আফগানিস্তানে তালেবানের উত্থানে উদ্বুদ্ধ এবং আল-কায়েদা মতাদর্শে বিশ্বাসী বলে জানিয়েছে,” বলেন র‌্যাবের এই কর্মকর্তা।
তিনি বলেন, তারা সুকৌশলে মাদ্রাসা ছাত্রদের টার্গেট করে ‘জঙ্গি আদর্শে’ অনুপ্রাণিত করে আসছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গ্রেফতার ইসমাইল নারায়ণগঞ্জের একটি মাদ্রাসায় দাওরায়ে হাদিসের ছাত্র। এক বছর আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিদেশে অবস্থানরত সালাউদ্দিন নামের এক জঙ্গির সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এরপর তিনি উগ্রবাদে উদ্বুদ্ধ হয়ে জঙ্গি সংগঠনে জড়িয়ে পড়েন। পরে তাকে রিক্রুটিং শাখার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়।

আর জিহাদকে মাদ্রাসা শিক্ষক জিহাদ এবং আমিনুল পেশায় গার্মেন্ট শ্রমিক উল্লেখ করে কমান্ডার আরাফাত বলেন, তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পৃথকভাবে জঙ্গিনেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ এবং তাদের নির্দেশনায় সংগঠন পরিচালনা করেন। এজন্য তাদেরকে অঞ্চলিক প্রশিক্ষকের দায়িত্ব দেয়া হয়।
গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ