নতুন ভোটারের প্রত্যাশা কর্মসংস্থান

আপডেট: ডিসেম্বর ৬, ২০২৩, ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজশাহী অঞ্চলের ৩৯টি সংসদীয় আসনে ভোটার বেড়েছে ১৭ লাখ ১৫ হাজার ৪৫১ জন। যা মোট ভোটার সংখ্যার ১১ শতাংশের বেশি। এছাড়া রাজশাহী জেলার ৬টি সংসদীয় আসনে ভোটার বেড়েছে ২ লাখ ৩৬ হাজার ২২ জন। যা মোট ভোটার সংখ্যার ১১ শতাংশের কিছু কম।

জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে নতুন ভোটারদের ব্যপক আগ্রহ ও উদ্দীপনা যেমন আছে, তেমনি আছে নানা প্রত্যাশাও। কেননা যে কোন নির্বাচনে তরুণ এই নতুন ভোটাররাই বড় একটি ভূমিকায় থাকেন। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের পাশপাশি কর্মসংস্থানই মূখ্য প্রত্যাশা এসব নতুন ভোটারদের।

নতুন ভোটাররা বলছেন, বাংলাদেশ সবদিক দিয়েই এগিয়ে যাচ্ছে। এই অগ্রযাত্রা অক্ষুন্ন থাকবে এমন সরকারকেই তারা ক্ষমতায় আনতে চান। তবে বর্তমানে কর্মসংস্থান একটি বড় সমস্যা। এই সমস্যার সমাধানই নতুন তরুণ ভোটার হিসেবে প্রধান চাওয়া। এছাড়া বরেন্দ্র এলাকায় কৃষক সমস্যাগুলো সমাধান, কৃষি পণ্যের নায্য মূল্য নিশ্চিত, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম সহনশীল রাখাসহ এ অঞ্চলের মানুষের জীবনমান উন্নয়নের নানা প্রত্যাশার কথা জানাচ্ছেন তারা।

পবা উপজেলার নতুন ভোটার মো. ইয়াসিন আলী বলেন, ভোটের পরিবেশ ভালো হলে অবশ্যই ভোট দিতে যাবো। আর সরকারের প্রতি নাগরিক হিসেবে প্রত্যাশা থাকবেই। আমারও প্রত্যাশা আছে। বিশেষ করে নতুন ভোটার হিসেবে কর্মসংস্থান চাই। রাজশাহীতে কর্মসংস্থানের সুযোগটা কম। গ্যাজুয়েশন কমপ্লিট করে বেকারত্মের বোঝা থেকে মুক্ত করবে সরকার এমনটাই প্রত্যাশা।

মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট পৌর এলাকার হরিদাগাছি গ্রামের রোকসানা খাতুন বলেন, আমি দেশের নাগরিক হিসেবে প্রথম বার সরকার নির্বাচনের ভোট দেবো। ভোট মানেই উৎসব। তবে এবার কিছুটা উৎকণ্ঠা আছে। ভোট কেন্দ্রের পরিবেশ ভালো থাকলে ভোট দিবো। আর নারী হিসেবে নারীদের কর্মসংস্থানের প্রত্যাশা থাকবে।

চারঘাট উপজেলার গোছা হাটের রাকিবুল ইসলাম বলেন, আমি নতুন ভোটার হয়েছি। ভোট দেয়ার অধিকার সরকার দিয়েছে এজন্য ভোট দেবো। এজন্য ভোটের মাঠে পরিবেশ সুন্দর রাখতে সরকার যেন ব্যবস্থা রাখেন তাহলেই আমরা খুশি হবো।

শলুয়া ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের ফারহানা আক্তার বলেন, আমি প্রথম ভোটার হয়ে খুব খুশি। সুন্দর পরিবেশে উৎসব উদযাপনের মাধ্যমে ভোট দিতে যেন পারি এটা আমার প্রত্যাশা।

উপজেলার বন কিশোর শিমুলিয়া গ্রামের সামিউল ইসলাম বলেন, পরিবেশ ভালো থাকলে ভোট দিবো। যে সরকার কর্মের ব্যবস্থা করবে তাকেই ভোট দিবো।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ