নতুন স্পেসস্যুট দেখালেন মাস্ক

আপডেট: আগস্ট ৩১, ২০১৭, ১:১৪ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


মহাকাশযানে করে আন্তর্জাতিক মহাকাশ কেন্দ্রে যেতে নভোচারীদের জন্য নতুন একটি স্পেসস্যুট বানিয়েছে স্পেসএক্স।
বুধবার নতুন স্পেসস্যুট পড়া অবস্থায় এক নভোচারীর ছবি নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে পোস্ট করেন মহাকাশযান নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী ইলন মাস্ক।
ছবিতে দেখা গেছে সাদা রঙের স্যুটের সঙ্গে কালো প্যানেল ব্যবহার করা হয়েছে। আর এতে একটি হেলমেট রয়েছে যেখানে বড় ফেইস শিল্ড রাখা হয়েছে– খবর সিএনএন-এর। পোস্টে মাস্ক বলেন, ছবিতে যা দেখানো হয়েছে তা বাস্তব। প্রতিষ্ঠানের কার্যকরী এই সংস্করণটি হয়তো একদিন নভোচারীদের দেওয়া হবে। “এটি আসলেই কাজ করে। বাহ্যিক সৌন্দর্যের সঙ্গে কার্যকরিতার সাদৃশ্য রাখাটা অনেক কঠিন ছিল,” বলেন মাস্ক। স্পেসএক্স-এর ক্রু ড্রাগন-এর নভোচারীদের জন্যই নতুন স্পেসস্যুটটি নকশা করা হয়েছে। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসা’র সঙ্গে চুক্তিতে নভোচারীদের আন্তর্জাতিক মহাকাশ কেন্দ্রে পাঠাবে স্পেসএক্স। এখন পর্যন্ত শুধু সরকারি প্রতিষ্ঠানই মহাকাশে মানুষ পাঠিয়েছে। এবার ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান হিসেবে মহাকাশে মানুষ পাঠিয়ে ইতিহাস গড়তে বোয়িংয়ের সঙ্গে পাল্লা দিচ্ছে স্পেসএক্স। ২০১১ সালে স্পেস শাটল প্রোগ্রাম বন্ধ হওয়ার পর থেকে মহাকাশে নভোচারী পাঠাতে কোনো মহাকাশযান নেই নাসা’র। এ যাবত নভোচারী পাঠাতে রাশিয়ান মিশনের ওপর নির্ভর করে আসছিল প্রতিষ্ঠানটি। বেশ কয়েক বছর ধরেই বোয়িং ও স্পেসএক্স মানববাহী মহাকাশযান তৈরি করে আসছে। নভোচারী পাঠাতে ২০১৪ সালে এই দুই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করেছে নাসা। চুক্তি অনুযায়ী নাসা’র মিশনের পাশাপাশি ৪২০ কোটি মার্কিন ডলার পেয়েছে বোয়িং এবং স্পেসএক্স পেয়েছে ২৬০ কোটি মার্কিন ডলার। স্পেসএক্স-এর আগেই নিজস্ব স্পেসস্যুট নকশা করেছে বোয়িং। উজ্জ্বল নীল রঙের তাদের স্পেসস্যুট নকশা করেছে স্পোর্টস সামগ্রী নির্মাতা প্রতিষ্ঠান রিবক।-বিডিনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ