নবমীতে মণ্ডপে মণ্ডপে ভক্তদের ঢল

আপডেট: অক্টোবর ৮, ২০১৯, ১:২৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নবমীর দিনে পুজা মণ্ডপে আরাধনায় মগ্ন এক নারী-সোনার দেশ

মণ্ডপে মণ্ডপে প্রার্থনা আর অর্চনার মধ্যে দিয়ে শারদীয় দুর্গোৎসবের চতুর্থ দিন অর্থাৎ গতকাল সোমবার মহানবমী উদযাপিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দশমীতে দেবীর বিসর্জন অনুষ্ঠিত হবে।
নগরীতে মহানবমীতে সকাল থেকেই মণ্ডপে মণ্ডপে শুরু হয়েছিল শেষ সময়ের আরাধনা। বিসর্জনের পূর্বে সকল মণ্ডপে মণ্ডপে ভক্তদের ছিলো উপচেপড়া ভিড়। ঢাকের তাল, কাসার শব্দে, ধুপের ধোঁয়ায়, ঘণ্টার টং টং শব্দ আর ভক্তদের উলুধ্বনি শব্দে মুখরিত ছিল মণ্ডপ। পঞ্চ প্রদীপের আলোয় মাকে শেষ সময়ের দর্শনে এসেছেন ভক্তসহ দর্শনার্থীরা। সকল মণ্ডপে চলছে সার্বজনীন সুখ-সম্প্রীতির প্রার্থনা। দেশ ও দশের কল্যাণে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা দেবীদুর্গার পদতলে প্রদান করছেন পুষ্পাঞ্জলি ।
গতকাল সোমবার নবমীতে সকাল থেকেই নগরীর রূপালি গিটার মণ্ডপ, ত্রিনয়নী পূজা মণ্ডপ, মাতৃছায়া মণ্ডপ, লাঠিয়াল মণ্ডপ, স্বপ্নকুটির মন্ডপ, আনন্দকুমারী মণ্ডপ, পদ্মা সার্বজনীন মণ্ডপ, শ্রী পাঁচু মন্ডল আখড়া মণ্ডপ, নবরূপ মণ্ডপসমূহে ভক্তদের ভিড় দেখা যায়। সকালে মহানবমীর পূজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর দেবীর প্রতি ভক্তি, আরতি, অঞ্জলি প্রদানসহ ভক্তদের মাঝে প্রসাদ বিতরণ করা হয়।
ত্রিনয়নী মণ্ডপের পুরোহিত দেবব্রত চত্রুবর্তী বলেন, দেবী মা সব অশনি সংকেত বিনাশ করে এই পৃথিবীতে শান্তি আনবেন। মায়ের সন্তানরা সুন্দরভাবে জীবন যাপন করতে পারবেন এই প্রত্যাশায় আজকের দিনটি পালিত হচ্ছে। সবার জন্য সুখ সম্প্রীতি কামনা করা হচ্ছে।
হিন্দু শাস্ত্রীয় বিধান অনুসারে, রামচন্দ্র রাবণ বধের পর নবমী তিথিতে ১০৮ টি নীল পদ্ম দিয়ে দেবী দুর্গার পূজা করেছিলেন। সেই রীতি অনুসারে মহানবমীতে ষোড়শ উপাচারের সঙ্গে ১০৮ টি নীলপদ্ম দিয়ে দেবী দুর্গাকে পূজা দেয়া হয়। ধর্ম প্রতিষ্ঠায় দুর্গতিনাশিনীর কাছে প্রার্থনা করেন ভক্তরা।
নগরীর রীতা রাণী বলেন, মহানবমীতে সকালে মিষ্টি, ঘি, ছানাসহ ফলফলাদির ভোগের মাধ্যমে পূজা শুরু হয়। নবমীতে তিনবার পূজা করা হয়। অশুভ শক্তির বিনাশে র্প্রাথনা করা হয়। দশমীতে শেষ পূজা সহ বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যে দিয়ে ঘটা করে দেবীর বিসর্জন করা হবে। শেষ সময়ে আমরা অনেক আনন্দ করছি। সবাই মিলে খুব ভালো লাগছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ