নবাবগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩

আপডেট: জুন ১৯, ২০২২, ২:০০ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক :


ঢাকা জেলার নবাবগঞ্জ বাগমারা বাজারে প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে ধাক্কা লেগে শিশুসহ তিনজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন আরও তিনজন ।

রোববার (১৯ জুন) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হয় দুজন। আর চারজনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে আসলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান বিল্লাল নামে ওই গাড়ি চালক।

নিহতরা হলেন- আবুল কাশেম খান (৬৫), মনির খান বিল্লাল (৪৫) ও ফারহানা (৮)। আহতরা হলেন-লাভলু মিয়া (৩৮), তার স্ত্রী রেখা খান (২৩) ও ফাহিমা (৫)।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দোহার উপজেলার রায়পাড়া গ্রামের আবুল কাসেম নিজস্ব প্রাইভেটকার নিয়ে মেয়ে রেখা, তার বড় মেয়ের ঘরের দুই নাতনি ফারহানা ও ফাহিমাকে নিয়ে অপর মেয়ের জামাই প্রবাসী লাভলুকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আনতে যান।

রোববার ভোরে বিমানবন্দর থেকে বাড়ি ফেরার পথে ঢাকা বান্দুরা সড়কের নবাবগঞ্জ উপজেলার প্যারাগন হাসপাতালের সামনে এলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। এতে গাড়িটি একটি ইলেক্ট্রিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা খায়।

এসময় উপস্থিত লোকজন এগিয়ে এসে আহতদের উদ্ধার করে নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক আবুল কাসেম ও ফারহানাকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত লাভলু, রেখা ও চালক বিল্লালকে ঢাকা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে যাওয়া হয়। আর ফাহিমাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

নবাবগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ভজন রায় বলেন, পরিবারের আবেদনে ঘটনাস্থলে নিহত দুজনের লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তারা এ ঘটনায় কোনো মামলা দায়ের করতে রাজি হয়নি। বিল্লালের লাশ ঢাকা মেডিকেলের মর্গে রয়েছে।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) মো. বাচ্চু মিয়া জানান, এই ঘটনায় হাসপাতালে চারজনকে নিয়ে আসা হয়েছিল। এদের মধ্যে চিকিৎসাধীন প্রাইভেটকার চালক বিল্লাল মারা গেছেন। বাকি তিনজন ভর্তি আছেন। তাদের অবস্থা গুরুতর।
তথ্যসূত্র: বাংলানিউজ