নাইজেরিয়ায় গির্জার ছাদ ধসে মৃতের সংখ্যা শতাধিক

আপডেট: ডিসেম্বর ১৩, ২০১৬, ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


নাইজেরিয়ার দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় উয়ো নগরীতে একটি গির্জার ছাদ ধসে মৃত্যুবরণকারীর সংখ্যা বেড়ে অন্ততপক্ষে ১০০ জনে দাঁড়িয়েছে।দেশটির একজন ফটোসাংবাদিক হাসপাতালের মর্গগুলো পরিদর্শন করে রোববার এই তথ্য জানিয়েছেন। কিন্তু আনুষ্ঠানিকভাবে দেশটির পক্ষ থেকে মৃতের সংখ্যা মাত্র ২৭ জন বলে জানানো হয়েছে। অবশ্য অন্যান্য কয়েকটি গণমাধ্যম মৃতের সংখ্যা আরও বেশি বলে জানিয়েছে।
ইউনিভার্সিটি অব উইও টিচিং হাসপাতালের এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে ‘দ্য টেলিগ্রাফ’ এর খবরে মৃতের সংখ্যা ১৬০ জন বলা হয়েছে।
ফটোসাংবাদিক ইনি স্যামুয়েল বলেন, “উয়ো টিচিং হাসপাতাল যেখানে আমি এখন রয়েছি, আমি সম্ভবত শতাধিক মৃতদেহ দেখতে পাচ্ছি। মেঝের উপর একটির উপর আর একটি লাশ স্তূপ করে রাখা হয়েছে।”
তিনি আরো বলেন, “প্রত্যক্ষদর্শীরাও গতকাল জানিয়েছেন, একটি ব্যাগে চারটি করে লাশ ঢোকানো হয়েছে।” গ্যারি উবোং নামের একজন স্থানীয় অধিবাসী জানিয়েছেন, “লোডার দিয়ে ১০০ টিরও বেশি লাশ বের করা হয়েছে।” দুর্ঘটনার পরপরই তিনি ঘটনাস্থলে পৌঁছান বলে জানিয়েছেন।
তিনি আরো বলেন, “আমি দুটি হাসপাতালেও গিয়েছি। সেখানে লাশের উপর লাশ স্তূপ করে রাখা হয়েছে, যা গণনা করা কঠিন।”
শনিবার একজন বিশপের অভিষেক অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে প্রচুর মানুষ গির্জার ভেতরে জড়ো হয়েছিলেন। হঠাৎ করেই ছাদসহ গির্জার উপরের অংশ ধসে পড়ে।
রেইনার্স বাইবেল গির্জায় দুর্ঘটনার সময় রাজ্যের গভর্নর ইউদোম ইমানুয়েলও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তিনি সামান্য আহত হয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, গির্জাটির সংস্কার কাজ চলছিল। বিশপের অভিষেক অনুষ্ঠানের জন্য শ্রমিকরা দ্রুত গতিতে কাজ শেষ করতে চাইছিলেন। দ্রুত কাজ করতে গিয়ে কাজের মান খারাপ হয়েছিল কিনা তা তদন্ত করে দেখা হবে বলে জানিয়ছেন গভর্নর ইমানুয়েল।
দুর্ঘটনার পর বেঁচে যাওয়া এক ব্যক্তি স্থানীয় একটি টেলিভিশন চ্যানেলকে বলেন, “হঠাৎ করে প্রার্থনা করতে আসা মানুষদের উপর গির্জার ছাদ ভেঙে পড়ে। গভর্নরকে দ্রুত উদ্ধার করা হয়। কিন্তু অন্যরা তার মত ভাগ্যবান ছিলেন না।” এ ঘটনায় দেশটির প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদু বুহারি ‘গভীর দুঃখ’ প্রকাশ করেছেন।- বিডিনিউজ