নাটকীয়, অবিশ্বাস্য জয়ে ফাইনালে কোয়েটা

আপডেট: মার্চ ২, ২০১৭, ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



জয়ের জন্য শেষ তিন বলে পেশোয়ার জালমির প্রয়োজন ছিল ২ রান। কিন্তু কোনো রান নেওয়া তো দূরে থাক, দলটি শেষ তিন বলে হারাল ৩ উইকেট! প্রথম কোয়ালিফায়ারে নাটকীয় আর অবিশ্বাস্য ১ রানের জয়ে পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) ফাইনালে উঠে গেল কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্স।
শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার রাতে ২০১ রান তাড়ায় শেষ ওভারে পেশোয়ারের দরকার ছিল ৭ রান। কোয়েটা অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ বল তুলে নেন মোহাম্মদ নওয়াজের হাতে। বাঁহাতি এই স্পিনার আগের তিন ওভারে ৪৬ রান দিয়ে ছিলেন উইকেটশূন্য। সেই তিনিই শেষ ওভারে করলেন দুর্দান্ত বোলিং। শেষ ওভারে নওয়াজের প্রথম বল থেকে কোনো রান নিতে পারেননি পেশোয়ারের অধিনায়ক ড্যারেন স্যামি। তবে দ্বিতীয় বলে হাঁকান চার। পরের বলে সিঙ্গেল নিয়ে স্যামি চলে যান নন স্ট্রাইক প্রান্তে। ৩ বলে চাই ২। কিন্তু চতুর্থ বলে সরফরাজের দুর্দান্ত ক্যাচে ফেরেন ক্রিস জর্ডান।
তখনো কে জানতো, নাটকীয়তার আরো বাকি! নওয়াজ শেষ দুটি বলই দিলেন ইয়র্কার। আর সেই দুই বলেই একে একে রানআউটে কাটা পড়লেন ওয়াহাব রিয়াজ ও হাসান আলী! তাতেই ১ রানের অবিশ্বাস্য জয়ে বাঁধভাঙা উল্লাসে মেতে উঠলেন নওয়াজ-সরফরাজরা।
বড় লক্ষ্য তাড়ায় ৩ রানের মধ্যেই অবশ্য ২ উইকেট হারিয়েছিল পেশোয়ার। তবে তৃতীয় উইকেটে মোহাম্মদ হাফিজ (৭৭) ও ডেভিড মালানের (৫৬) ৭২ বলে ১৩৯ রানের বড় জুটি পেশোয়ারকে জয়ের পথে রেখেছিল। কিন্তু শেষ তিন বলে ৩ উইকেট হারিয়ে শহীদ আফ্রিদির দলের এই নাটকীয় হার। পিএসএলের গত আসরেও একই স্টেজে এই কোয়েটার কাছে ১ রানে হেরেছিল পেশোয়ার।
এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে আহমেদ শেহজাদের ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ২০০ রানের বড় পুঁজি গড়ে কোয়েটা। ৩৮ বলে ৭ চার ও ৪ ছক্কায় ৭১ রান করেন শেহজাদ। ২২ বলে ৪০ রানের আরেকটি ঝোড়ো ইনিংস খেলেন কেভিন পিটারসেন। শ্রীলঙ্কা সফরের কারণে পেশোয়ারের তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসান আর কোয়েটার মাহমুদউল্লাহ- তিন বাংলাদেশির কেউই ছিলেন না এই ম্যাচে। রাইজিংবিডি