নাটোরের এক গ্রামে সব পরিবারে চর্মরোগ!

আপডেট: অক্টোবর ৭, ২০২২, ১২:২৩ পূর্বাহ্ণ

নাটোর প্রতিনিধি :


নাটোরের একটি গ্রামের প্রতিটি পরিবারের সদস্যদের মাঝে চর্ম রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। দেড় বছর ধরে ওষুধ খেয়েও প্রতিকার পাচ্ছেন না গ্রামবাসী। নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার চাপিলা পাবনাপাড়া গ্রামে দেড়শতাধিক মানুষ এই দুর্ভোগে রয়েছেন। তবে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ আতঙ্কিত না হয়ে সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহণের পরামর্শ দিচ্ছেন।

জানা যায়, নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার চাপিলা পাবনা পাড়ায় এলাকায় সুলতানের স্ত্রী লিমা খাতুন দেড় বছর আগে চর্ম রোগে আক্রান্ত হন। এরপর থেকে পুরো এলাকায় ওই রোগ ছড়িয়ে পড়েছে। ওষুধ খেয়েও প্রতিকার পাচ্ছেন না।

লিমা খাতুন জানান, তিনি গুরুদাসপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ অন্তত ৭ জন চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করেছেন। দেড় বছরের চিকিৎসায় কোনো প্রতিকার পান নি। উপরন্তু তার মেয়েও চর্মরোগে আক্রান্ত হয়েছে।

আব্দুস ছামাদ নামের আরেক ভুক্তভোগী জানান, তাদের গ্রামে ১ শো পরিবার রয়েছে। প্রতিটি পরিবারের কেউ না কেউ এই রোগে আক্রান্ত হয়েছে। নারী-পুরুষের পাশাপাশি শিশুরাও আক্রান্ত হচ্ছেন। দেড় বছর ধরে প্রায় দেড় শো জনের অধিক মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্ত সকলেই বিভিন্ন চিকিৎসকের পরামর্শে ওষুধ সেবন করলেও প্রতিকার পান নি। ওষুধ সেবন করলে সুস্থ থাকেন। ওষুধ বন্ধ করলে আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন।

আব্দুস ছামাদ আরও জানান, আক্রান্তদের হঠাৎই শরীরের বিভিন্ন স্থানে ঘামাচির মতো বের হয়। এরপর চুলকানো শুরু হয়। ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে সমস্যা। ওই অবস্থায় শান্তি পেতে চুলকানো শুরু করলে লাল হয়ে যায়। এক পর্যায়ে চুলকানোর কারণে রক্ত বের হয়। তারপর শরীরের বিভিন্ন স্থানে শক্ত হয়ে যায় ।

গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবনী রায় বলেন, তিনি সবে মাত্র এ উপজেলায় যোগদান করছেন, বিষয়টি সম্পর্কে অবগত নন। তবে মাসিক সমম্বয় সভায় এ ব্যাপারে আলোচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

নাটোরের সিভিল সার্জন ডা. রোজী আরা খাতুন বলেন, স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ তাকে যেমনটি জানিয়েছেন, পাটের জাগ দেওয়া পচাঁ পানি থেকে এই চর্মরোগ ছড়িয়েছে। এই চর্মরোগ ঘা-পচরা চুলকানি যা-ই হোক, সেখানকার হাসপাতালে পর্যাপ্ত পরিমাণ ওষুধ রয়েছে। যারা যাচ্ছেন তাদেরকে ওষুধ দেয়া হচ্ছে। আর তারা বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছেন। আতঙ্কিত না হয়ে আক্রান্তদের চিকিৎসা নেয়ার আহবান জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ