নাটোরে আন্তঃজেলা অজ্ঞান পার্টির মূল হোতা ফুলমিয়াসহ চার সক্রিয় সদস্য গ্রেফতার

আপডেট: আগস্ট ৯, ২০২২, ৪:৪৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


সিপিসি-২, নাটোর ক্যাম্প, র‌্যাব-৫, রাজশাহীর একটি অপারেশন দল কর্তৃক সোমবার (৮ আগস্ট) রাত সাড়ে ১১ টায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে আন্তঃজেলা সংঘবদ্ধ মলম, অজ্ঞান পার্টি ও ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা ফুলমিয়াসহ চার সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ধৃত ব্যক্তিরা হল রংপুরের মিঠাপুকুর থানার আব্দুল্লাহপুরের মৃত আ. গামাদের ছেলে মো. ফুল মিয়া (৪৮), নাটোরের বাগাতিপাড়া থানার কৃষ্ণপুরের মুত মোবারক হোসেনর ছেলে মো. সানোয়ার হোসেন (৫৩), পঞ্চগড় সদর থানার মালিপাড়ার মৃত আ. জব্বারের ছেলে মো. আলমগীর (৪৬), পিতা- মৃত আঃ জব্বার, সাং-মালিপাড়া, উভয় থানা ও জেলা-পঞ্চগড়, ৪। মোঃ আঃ রাজ্জাক (৫০), পিতা- মৃত মীর আলী, সাং-বেকারকোনা, থানা- মধুপুর, জেলা- টাঙ্গাইলদেরকে গ্রেফতার করে। এসময় তাদের নিকট হতে (ক) চেতনানাশক ঔষুধ-৫০ পিস, (খ) সুইচ গিয়ার চাকু-০২ টি, (গ) চাকু-০১ টি, (ঘ) মোবাইল- ০৪ টি, (ঙ) সীমকার্ড-০৬ টি, (চ) মেমোরীকার্ড-০২ টি, (ছ) ছিনতাইকৃত টাকা- ১৪১২০/- (চৌদ্দ হাজার একশত বিশ) টাকা, (জ) ঔষুধ মিশ্রিত বিস্কুট- ০২ প্যাকেট জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা সকলেই একটি সংঘবদ্ধ আন্তঃজেলা মলম, অজ্ঞান ও ছিনতাইকারী চক্রের সক্রিয় সদস্য। গ্রেফতারকৃত আসামীগণ রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলার গণপরিবহন অথাৎ যাত্রীবাহী বাস বা ট্রেনে যাত্রী ছদ্মবেশে ভ্রমন করে এবং পরস্পর যোগসাজসে ঐ পরিবহনের বিশেষ কোন যাত্রীকে টার্গেট করে আলাপতারিতার মাধ্যমে বন্ধুত্ব বা সখ্যতা গড়ে তুলে। পরবর্তীতে কৌশলে চেতনানাশক ঔষুধ মিশ্রিত বিস্কুট বা পানি অথ্যাৎ বিভিন্ন ধরনের খাবার খাইয়ে অজ্ঞান করে এবং প্রয়োজনে দেশীয় অস্ত্র ব্যবহার করে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে উক্ত যাত্রীর টাকা পয়সা স্বর্ণালঙ্কার লুট করে নিয়ে কৌশলে ঐ পরিবহন হতে সটকে পড়ে। ফলে অনেক অজ্ঞানের স্বীকার ভূক্তভোগী যাত্রীর গুরুতর অসুস্থ্যসহ মৃত্যু ঘটনা ঘটেছে। আটককৃত আসামীদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় ছিনতাই, চুরি ও হত্যা মামলা রয়েছে।

উপরোক্ত ঘটনায় নাটোর জেলার সদর থানায় পেনাল কোড আইনের ৩২৮/৩৯৩/৩৪ ধারায় মামলা রুজু করার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।