নাটোরে করোনায় প্রাণ গেলো তরুণ পুলিশ অফিসারের

আপডেট: আগস্ট ১৪, ২০২০, ১০:৩০ অপরাহ্ণ

নাটোর ও শিবগঞ্জ প্রতিনিধি


টানা ছয় দিন লাইফ সাপোর্টে থাকার পর বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) দিবাগত রাতে কোভিড-১৯এ আক্রান্ত নাটোরের বড়াইগ্রাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন আলী (৩৮) মারা গেছেন। ঢাকায় রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার দৌলতপুরের আবদুল লতিফের ছেলে।
পুলিশ কর্মকর্তা সুমন আলীর স্ত্রী রাবেয়া সুলতানা জানান, ইদুল আজহার কয়েক দিন আগে সুমনের শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। নাটোরে তার নমুনা পরীক্ষা করানো হয়। ফলাফল নেগেটিভ আসে। কিন্তু শ্বাসকষ্ট বাড়তে থাকে। তাই ইদের পরদিন তাকে ঢাকার রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পজিটিভ আসে। এরপর আরো খারাপ হতে থাকে। ৮ আগস্ট তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) নেওয়া হয়। সেখানে লাইফ সাপোর্টে ছয় দিন থাকার পর বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে তার মৃত্যু হয়
নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) তারেক জুবায়ের বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে পুলিশ সদস্য সুমন আলীর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন বলেন, গত ৭ আগস্ট করোনায় আক্রান্ত হন তিনি। তার জটিল এ্যাজমা রোগ থাকায় পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হয়। তাকে ভর্তি করা হয় রাজারবাগ পুলিশ লাইন হাসপাতালে।
গত পরশু জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে প্লাজমা থেরাপির জন্য সাহায্য চাওয়া হয়েছিল। জানিনা সাহায্যের জন্য কেউ এগিয়ে এসেছিলেন কিনা। প্রচন্ড শ্বাস কষ্ট জনিত কারণে তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার।
এদিকে শিবগঞ্জ প্রতিনিধি জানায়, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর রাজার বাগ পুলিশ লাইনস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করা নাটোরের বড়াইগ্রাম থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন আলীকে শুক্রবার বিকেলে রাষ্ট্রীয় মর্যদা প্রদানের পর জানাজা শেষে পৌর কেন্দ্রীয় গোরস্থানে দাফন করা হয়। জানাযায় অংশ নেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুবুল আলম খাঁন, শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাকিব আল-রাব্বি, শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শামসুল আলম শাহসহ বিভিন্ন পেশার শতাধিক মানুষ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ